জমি বিবাদের জের! বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুনের অভিযোগ, গ্রেফতার নাবালক সহ ৭

0
170
bankura murder

বাঁকুড়াঃ জমি জায়গা নিয়ে বিবাদ! বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুনের (murder) অভিযোগে গ্রেফতার ১ নাবালক সহ ৭ । রানীবাঁধ থানা এলাকার শুশনিগেড়িয়া গ্রাম সংলগ্ন এলাকার ঘটনা।

আরও পড়ুন :পর পর ইলেকট্রিক পোস্টে ধাক্কা মেরে দোকান ভেঙে সটান ঢুকে গেল গাড়ি

- Advertisement -

বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন! এই ঘটনায় নাম জড়াল ১ নাবালক সহ ৭ জনের। গ্রেফতার ৭ অভিযুক্ত। বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে জানালেন  বাঁকুড়ার পুলিশ সুপার বৈভব তিওয়ারী। চলতি মাসে রানীবাঁধ থানা এলাকার শুশনিগেড়িয়া গ্রাম সংলগ্ন ভূতগেড়িয়া-আম বাঁধের কাছে গণেশ মুদি নামে এক ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়। শুশনিগেড়িয়া গ্রামেরই বাসিন্দা ছিলেন তিনি। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা যায় এলাকায়।

আরও পড়ুন :পরনে নীল লুঙ্গি, উন্মুক্ত শরীর, শীর্ণকায় দেহ, ব্যস্ত রেল স্টেশনের বাইরে পড়ে ব্যক্তির নিথর দেহ

নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে খাতড়ার এস.ডি.পি.ও কাশীনাথ মিস্ত্রীর নেতৃত্বে ঘটনার তদন্তে নামে রানীবাঁধ থানার পুলিশ । অবশেষে বুধবার পুলিশ এক নাবালক সহ সাত অভিযুক্তকে শুশনিডাঙ্গা গ্রামের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে মৃত গণেশ মুদির দুই ভাই কর্মসূত্রে বাড়ির বাইরে থাকেন। পৈতৃক জমি জমা দেখাশোনা ও চাষাবাদ করতেন গণেশ । আর এই আট বিঘা জমিকে কেন্দ্র করেই প্রতিবেশীদের সঙ্গে ঝামেলার সূত্রপাত। অভিযোগ জমি সংক্রান্ত বিবাদের জেরেই ৭ অভিযুক্ত গণেশ মুদিকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করে খুন (murder) করেন। যদিও অভিযুক্তদের আইনজীবি অসীম গোপের দাবি, তাঁর মক্কেলরা সম্পূর্ণ নির্দোষ। ঐ খুনের ঘটনার সঙ্গে তাঁরা কেউ জড়িত নন। অন্যদিকে সরকার পক্ষের আইনজীবি সন্দীপ দে বলেন, ধৃতদের বিরুদ্ধে পুলিশ ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২০ বি, ৩২০, ২০১ ধারায় মামলা রুজু করেছে। অভিযুক্তদের খাতড়া মহকুমা আদালতে তোলা হলে পুলিশের আবেদনে সাড়া দিয়ে বিচারক প্রত্যেককে পাঁচ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বলে তিনি জানান।