মারাদোনার ‘হ্যান্ড অব গডের’ জার্সি নিলামে, প্রশ্ন তুলছেন কিংবদন্তির মেয়ে

0
67

শান্তি রায়চৌধুরী: ১৯৮৬ বিশ্বকাপে ম্যারাডোনার কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার হাত দিয়ে করা গোলটি ‘হ্যান্ড অব গড’ নামেই পরিচিত হয়ে আছে। ঐতিহাসিক ওই ম্যাচের জার্সিটি নিলামে উঠতে চলেছে আগামী ২০ এপ্রিল। ওইদিনই অনলাইনে শুরু হবে জার্সির জন্য বিডিং, চলবে ৪ মে পর্যন্ত। এর দাম অন্তত চার মিলিয়ন ডলার হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। লন্ডনের সোতেবি নিউবন্ড স্ট্রীট গ্যালারিতে দর্শকদের জন্য জার্সিটি উন্মুক্ত থাকবে।

মারাদোনার এই বিখ্যাত জার্সি ৩৫ বছর ধরে আছে ইংলিশ মিডফিল্ডার স্টিভ হজের কাছে সংরক্ষিত আছে। বিখ্যাত ওই কোয়ার্টার ফাইনালের পর আর্জেন্টাইন কিংবদন্তির সঙ্গে জার্সি বিনিময় করেছিলেন মারাদোনা। কিংবদন্তি ফুটবলারের মেয়ের দাবি, “এটি আসল জার্সি নয়, এই জার্সি পরে দ্বিতীয়ার্ধে খেলতে নামেনি বাবা।” আলবিসেলেস্তেরা সেই ম্যাচটিতে জয় পায় ২-১ গোলে। ওই ম্যাচে দ্বিতীয় গোলটিও এসেছিল মারাদোনার কাছ থেকেই।

মাঝমাঠ থেকে একাই দৌড়ে গিয়ে একাই গোল করেছিলেন মারাদোনা। পরে ওই গোল স্বীকৃতি পায় ‘গোল অব দ্য সেঞ্চুরি’ হিসেবে। তবে এই গোলের পরই মারাদোনা যে দলের হয়ে সূচক গোলটি করেছিলেন সেটি নিয়ে সারা বিশ্বে আলোচিত। এই গোলটি স্বীকৃতি পেয়েছিল ‘হ্যান্ড অফ গড’এর। স্টিভ হজ নিজ দলের গোলরক্ষক পিটার শিলটনের কাছে বল দেন, মারাদোনাও তখন লাফিয়ে উঠেন, বল জালে ঢোকার আগে সেটা ম্যারাডোনার বাঁ-হাতে লাগে। রেফারি মারাদোনার হাতে লাগার ব্যাপারটি আন্দাজই করতে পারেননি। গোল হিসেবে বৈধতা দেন রেফারি, একই মত দেন লাইন্স ম্যানও। ম্যাচশেষে এই গোল নিয়ে মারাদোনা বলেছিলেন, ‘গোলের কিছুটা হয়েছে মারাদোনার হেডে আর বাকিটা ঈশ্বরের হাত।’ পরে অবশ্য মারাদনা স্বীকার করেন হাতটা ছিল তার নিজেরই।

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মারাদোনার ওই দ্বিতীয় গোলটিই ঠাঁই করে নিয়েছে ইতিহাসে। শুধু তাই নয়, ২০০২ সালে ১৫০টি দেশের ৩ লাখ ৪০ হাজার মানুষের ভোটে শতাব্দীর সেরা গোল হিসেবে স্বীকৃতি পায় মারাদোনার ওই গোলটি। ইতিহাসের অন্যতম সেরা এই কিংবদন্তি ফুটবলারের দুই বিখ্যাত গোলের জার্সি নিয়ে আগ্রহটাও সব সময়ই তুঙ্গে।