বিপ্লব দেবের পদত্যাগের পরেই বিজেপির ঘোষিত নতুন মুখ্যমন্ত্রীর পরিচয় জানেন

0
156

আগরতলা: শনিবার হঠাৎই বড় বদল দেখা যায় ত্রিপুরার রাজনীতিতে। সকলকে চমকে দিয়েই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন বিপ্লব দেব। যদিও তাঁর পদত্যাগের পর একবিন্দু সময় নষ্ট না করেই বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব শনিবারই উত্তর-পূর্বের রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মানিক সাহার নাম চূড়ান্ত করে। বিপ্লব দেবের পদত্যাগের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই যার নাম রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে জানুন তাঁর পরিচয়।

ত্রিপুরার বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা যিনি ২০১৬ সালে কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। রাজনীতিবিদ হওয়ার আগে তাঁর পরিচয় একজন দন্ত চিকিৎসক। ৬৭ বছরের ডেন্টাল সার্জন তথা রাজনীতিবিদ ৩১ মার্চ ত্রিপুরার একমাত্র আসন থেকে রাজ্যসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। তাঁর অন্য পরিচয় হল তিনি ত্রিপুরা মেডিকেল কলেজ এবং আগরতলার বি.আর. আম্বেদকর মেমোরিয়াল টিচিং হাসপাতালের অধ্যাপক। তাছাড়াও তিনি ত্রিপুরা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির পদে রয়েছেন। বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের ঘনিষ্ঠ সহযোগী হিসাবেই পরিচিত তিনি। ২০২১ সালে ত্রিপুরা বিজেপি প্রদেশ কমিটির সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত হন মানিক সাহা।

আরও পড়ুন- উত্তর-পূর্বে কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপি যোগ দিয়েই এই নেতারা পেয়েছে বড় পদ

উল্লেখ্য,আগামী বছরেই রয়েছে ত্রিপুরাতে ৬০ আসনের বিধানসভা নির্বাচন। এর মধ্যে ত্রিপুরায় নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে চাইছে বাংলার শাসক দল তৃণমূল। তার আগেই মুখ্যমন্ত্রী বদল দিয়েই এখন রাজনৈতিক মহলে চর্চা শুরু হয়েছে। অনেকেই বলছেন ত্রিপুরাতে বিপ্লব দেবকে নিয়ে দলের মধ্যেই তৈরি হয়েছিল ক্ষোভ। সেই কারণেই এই পরিবর্তন। মানিক সাহা পেশায় একজন দন্ত চিকিৎসক এবং তার ভাবমূর্তি খুবই পরিচ্ছন্ন হওয়ায় আগামী বছরের রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই বিজেপি তাঁকে রাজ্যের শীর্ষ স্থানে বসিয়েছে বলেই মত দিচ্ছে রাজনৈতিক মহলের একংশ। আগামীতে উত্তর-পূর্বের রাজ্যের ভবিষ্যৎ কোন দিকে যায় সেই দিকেই নজর রয়েছে সমগ্র রাজনৈতিক মহলের।