বিধায়কদের পর এবার শিবসেনা সাংসদরাও একনাথের দিকে, আরও চাপে উদ্ধব

0
20

মুম্বই: যত সময় যাচ্ছে ততই চাপ বাড়ছে উদ্ধব ঠাকরের (Uddhav Thackeray) শিবসেনার। এক এক করে বিধায়করা বিদ্রোহী হয়ে একনাথ শিন্ডের শিবিরে যোগ দিচ্ছেন। এবার বিধায়ক নয় ১৪ জন শিবসেনা সাংসদ শিন্ডেকে সমর্থন করবেন বলেই জানিয়েছে। এই ঘটনা যদি ঘটে তবে সরকার তো দূরের কথা শিবসেনা দলটিকে রক্ষা করাই উদ্ধব ঠাকরের কাছে বড় চ্যলেঞ্জের হয়ে উঠবে। এমনটাই বলছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

মহারাষ্ট্রেরর জোট সরকাররে মধ্যে থাকা শিবসেনার সাংসদ সংখ্যা ১৯ জন। এই ১৯ জনের মধ্যেই ১৪ জনের সাংসদের একনাথকে সমর্থন যে বিরাট বড় ব্যপার তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। শিন্ডে মুখে বলেছেন উদ্ধব ঠাকরের বিরুদ্ধে তাঁর কোনও অভিযোগ নেই কিন্তু মহারাষ্ট্রের বাস্তব ছবি বলছে অন্য কথা। শিবসেনার বিধায়ক থেকে সাংসদ সকলেই এক এক করে হাত ছাড়ছেন মুখ্যমন্ত্রীর। শিবসেনার আরও তিনজন বিধায়ক বৃহস্পতিবার অসমের গুয়াহাটিতে একনাথের শিবিরে যোগ দিয়েছেন। তারপরেই গুয়াহাটির রেডিসন ব্লু হোটেলে শিবিরে থাকা মোট বিধায়কের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪২ জন। এই বিধায়কের মধ্যে ৩৫ জনই শিবসেনার।

আরও পড়ুন- ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় কংগ্রেসর নেত্রী সনিয়ার আবেদনের জবাব দিল ইডি

অন্যদিকে একনাথকে এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার মুখ্যমন্ত্রী করার প্রস্তাব দেওয়ার পরেও বুধবাররে উদ্ধবের (Uddhav Thackeray)  করা ভিডিও বার্তার পাল্টা জবাব দিতেও দেখা গিয়েছে শিন্ডেকে। শিবসেনা বিধায়ক বুধবার মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের আবেগপূর্ণ বক্তৃতার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তিন পৃষ্ঠার একটি চিঠি টুইট করেছেন। চিঠির শিরোনামে শিন্ডে লিখেছেন, “এগুলি বিধায়কদের অনুভূতি” উদ্ধব ঠাকরেকে আক্রমণ করে একনাথের শিবির একটি খোলা চিঠিতে লিখেছে, “রাজ্যে শিবসেনার মুখ্যমন্ত্রী থাকা সত্ত্বেও, দলের বিধায়করা বর্ষা বাংলো (মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন) দেখার সুযোগ পাননি। আশেপাশে লোকজন। মুখ্যমন্ত্রী সাধারণত সিদ্ধান্ত নেন আমরা তার সঙ্গে দেখা করতে পারি কি না। আমরা অপমানিত বোধ করি।” তাঁদের আরও দাবি, “গত আড়াই বছর ধরে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনের দরজা আমাদের জন্য বন্ধ ছিল।” আগামীতে মহারাষ্ট্রেরর রাজনীতি কোন দিকে মোড় নেয় সেই দিকেই নজর রয়েছে দেশের রাজনৈতিক মহলের।