শুভেন্দুর বাড়িতে জেলা পুলিশের তল্লাশি, টুইটারে ক্ষোভ রাজ্যপালের

0
615

মিলন পণ্ডা, কাঁথি: নন্দীগ্রামে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বাড়িতে তল্লাশি চালালো পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পুলিশ৷ রবিবার বিকেলে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তমলুক আর নন্দীগ্রাম থানার পুলিশ শুভেন্দু অধিকারী নন্দীগ্রামের বাড়ি তথা বিধায়ক কার্যালয়ে তল্লাশি চালায়। রাজ্য পুলিশের তল্লাশি নিয়ে রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি তার টুইটারে তল্লাশি অভিযানের ভিডি শেয়ার করেছেন। ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে টুইট করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ খনখড়ও৷ এভাবে রাজ্যের বিরোধী দলনেতার অফিসে পুলিশি তল্লাশি নিয়ে তিনি মুখ্য সচিবের কাছে রিপোর্টও তলব করেছেন৷

জেলা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, এদিন বিকেলে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা পুলিশ শুভেন্দু অধিকারীর নির্বাচনী এজেন্ট তথা বিজেপি নেতা মেঘনাথ পালের বাড়িতে হানা দেয়। বাড়িতে কেউ ছিলেন না বলে অভিযোগ। তার আত্মীয় পরিজনরা পুলিশ আধিকারিকের বাধা দেন। তারপরেই জেলা পুলিশের আধিকারিকরা নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর অধিকারীর বাড়ি তথা বিধায়ক কার্যালয়ে চলে আসেন। সেখানেই মেঘনাথ পালের স্ত্রী ও বাকিরা লুকিয়ে ছিল বলে পুলিশের দাবি। যদিও সেখানে পুলিশ তল্লাশিতে কারও খোঁজ মেলেনি৷ পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার অমরনাথ কে বলেন, “কয়েকদিন আগে মেঘনাথ পালের স্ত্রীর বিরুদ্ধে ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে চাকরি দেওয়ার অভিযোগ দায়ের হয়। সেই মামলার তদন্তে নেমে বাড়িতে গেলে পুলিশকে বাধা দেয় আত্মীয়-পরিজনরা। বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখছি।”

সূত্রের খবর,কয়েকদিন আগে তমলুক কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কে ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে চাকরি দেওয়ার অভিযোগ উঠে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর নির্বাচনী এজেন্ট মেঘনাথ পালের স্ত্রী মহুয়া জানা পালের বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করে জেলা পুলিশ। তারই জেরে এদিনের পুলিশ তল্লাশি বলে জানা গিয়েছে৷

আরও পড়ুন: বিরল রোগে আক্রান্ত কিশোর, ছেলেকে বাঁচাতে মায়ের কাতর আবেদন