পাকিস্তানে মৃত্যু 26/11 মুম্বই হামলাকারীদের প্রস্তুতকারী শীর্ষ লস্কর জঙ্গি নেতার

0
85

খাস ডেস্ক: 26/11 মুম্বই হামলার ঘটনা এখনও গোটা দেশের স্মৃতিতে তাজা।  বছরের পর পেরিয়ে গেলেও এখনও চোখ বুজলেই অনেকেই আঁতকে ওঠেন সেই দিনের ঘটনার কথা মনে করে। জঙ্গিরা অত্যন্ত পরিকল্পনা করে হামলা চালিয়েছিল। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছিল পাকিস্তান মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী। লস্কর-ই-তৈবা  নেতা আব্দুল সালাম ভুট্টাভি যে ২০০৮ সালের মুম্বই হামলার জন্য জঙ্গিদের প্রস্তুত করতে সাহায্য করেছিল তার মৃত্যু হয়েছে।

সন্ত্রাসবাদে অর্থায়নের জন্য কারাদণ্ড ভোগ করছিলেন।  আব্দুল সালাম ভুট্টাভি পাকিস্তানের একটি কারাগারে মারা গিয়েছে  বলেই  জানানো হয়েছে। ঘোষণায় বলা হয়, সোমবার বিকেলে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের শেখুপুরার একটি কারাগারে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ভুট্টাভির মৃত্যু হয়। লস্করের  ফ্রন্ট সংগঠনগুলি মঙ্গলবার সকালে লাহোরের কাছে মুরিদকেতে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর কেন্দ্রে  হওয়া ৭৮ বছর বয়সী ভুট্টভির শেষকৃত্য দেখানো হয়েছে বলে একটি ভিডিওও  শেয়ার করেছে। ভুট্টাভিকে  ২০১২ সালে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী  হিসাবে ঘোষণা করেছিল। তারপর তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল এবং বেশ কয়েক বছর পরে পাকিস্তান সন্ত্রাসে অর্থায়নের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছিল এবং এলইটি প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সাঈদের শ্যালক আবদুল রহমান মাক্কির সঙ্গে সন্ত্রাসবাদে অর্থায়নের একটি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছিল। ভারতীয় গোয়েন্দা কর্মকর্তারাও মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

- Advertisement -

২০২০ সালের আগস্টে  ভুট্টাভিকে  সাড়ে ১৬ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ভুট্টভির মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়েছে। ভুট্টভি যিনি পাকিস্তানের নিষিদ্ধ জঙ্গিগোষ্ঠী লস্কর-ই-তৈবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন যখন গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সাইদকে ২০০২ এবং ২০০৮ সালে পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষের দ্বারা আটক করা  হয়। জানিয়ে রাখা ভাল, ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বরে মুম্বাইতে তিন দিনে ১০ সদস্যের লস্কর জঙ্গিদের  দল মুম্বাইয়ের বিভিন্ন স্থানে লক্ষ্যবস্তু হামলা চালায়। তাতেই ভারতে আসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের মতো বিভিন্ন দেশের নাগরিক সহ মোট ১৬৬ জন নিহত হয় এবং ৩৫০ জনের বেশি মানুষ আহত হয়। এই জঙ্গি হামলার জন্য গোটা বিশ্ব পাকিস্তানের নিন্দা করেছিল।