সুন্দরী প্রতিযোগিতায় বাংলার মুখোজ্জ্বল করল মালদহের তনিষ্ঠা

0
276

মালদহ: অল্প বয়সেই বিরাট সাফল্যের মুখ দেখল কলেজ ছাত্রী তনিষ্ঠা ভৌমিক। নিজের স্বপ্নপূরণের মাধ্যমেই বাংলাকে পৌঁছে দিল এক অন্য মাত্রায়। পরপর ৪ টি সুপরিচিত সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করলেন তিনি। তাঁর সাফল্যে পরিবার থেকে শুরু করে বন্ধু-বান্ধব, প্রতিবেশী সকলেই খুব খুশী।

আরও পড়ুনঃ ‘ফেলো কড়ি, মাখো তেল’, এমসিআইয়ের নয়া নির্দেশে খাবি খাচ্ছে দরিদ্রদের ডাক্তারি পড়ার স্বপ্ন

- Advertisement -

মালদহের সুভাষপল্লী এলাকার মেয়ে তনিষ্ঠা ভৌমিক। কলকাতার আশুতোষ কলেজের স্নাতকস্তরে ইংলিশ অনার্স নিয়ে পাঠরতা সে। ছোট থেকে মালদায় বড় হওয়া তনিষ্ঠার স্বপ্ন অভিনেত্রী হওয়া। বিভিন্ন সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার ইচ্ছাও ছিল তাঁর। কলেজের প্রথম বর্ষেই স্বপ্নপূরণের এক ধাপ পেরোলেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ রাস্তা অবরোধ তুলতে এসে BDO-কে শুনতে হল, আগামী দিনে তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিট দেওয়া হবে

গত বছরের ৩০ অক্টোবর ‘মিস কলকাতা’র প্রথম পাঁচ প্রতিযোগীদের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি। ডিসেম্বরে ‘মিস নেক্সট ফেস অফ ইন্ডিয়া’ প্রতিযোগিতায় আসাম, সিকিম, দিল্লি, ঝাড়খণ্ড সহ বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা ৫০ জনকে পিছনে ফেলে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন। ‘বেঙ্গল কুইন’ প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান এবং ‘মিস ওয়েস্টবেঙ্গল আই গ্ল্যাম’ প্রতিযোগিতায়ও প্রথম স্থান দখন করেন তনিষ্ঠা।

তনিষ্ঠার সাথে কথা বলে জানা যায়, সুন্দরী প্রতিযোগিতাগুলিতে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন জানিয়েছিলেন। প্রাথমিক পর্যায়েই তাঁকে বেছে নেওয়া হয়। এরপরই চারটে প্রতিযোগিতাতেই সাফল্য মেলে। এবার ‘মিস ইন্ডিয়া’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার চেষ্টা করছেন। আগামী দিনে ভালো অভিনেত্রী হিসেবে কাজ করতে চান তনিষ্ঠা।

মালদহে সুভাষপল্লীর বাড়িতে তনিষ্ঠার মা, দাদা অভিষেক ভৌমিক, বৌদি, ভাইপো রয়েছেন। তাঁর বাবা তপন কুমার ভৌমিক কয়েক বছর আগেই প্রয়াত হয়েছেন। পরিবারের পাশাপাশি প্রতিবেশীরাও তনিষ্ঠার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। এছাড়া, ইংরেজবাজার পুরসভার প্রশাসক মণ্ডলীর ভাইস চেয়ারপার্সন চৈতালি সরকারও সাধুবাদ জানিয়েছেন এবং তনিষ্ঠা যাতে আগামী দিনে আরও এগিয়ে যায় সেই আশীর্বাদ দিয়েছেন।