শ্যালিকা ও তার মেয়েকে কুপিয়ে আত্মঘাতী জামাইবাবু

0
65

ব্যারাকপুর: কথায় বলে, বিষয় নয় বিষ৷ বাস্তবে সেটা চাক্ষুষ করলেন গোবরডাঙা থানার অন্তর্গত দুই নম্বর কলোনির বাসিন্দারা৷ শ্যালিকা ও তার মেয়েকে কুপিয়ে খুনের চেষ্টা করে ট্রেন লাইনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করলেন এক বৃদ্ধ৷ প্রাথমিক তদন্ত থেকে পুলিশের অনুমান, সম্পত্তিগত বিবাদের কারণেই এই ঘটনা৷

আরও পড়ুন: রঙে রাঙিয়ে ভোটের প্রচারে প্রার্থীরা

- Advertisement -

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তির নাম দুলালকৃষ্ণ দে৷ শালিকার পরিবারের সঙ্গে জমি জমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দীর্ঘ কুড়ি বছর ধরে অশান্তি চলছিল তাঁর । শনিবার সন্ধ্যায় অশান্তি চরম আকার পৌঁছালে জামাইবাবু দুলাল কৃষ্ণ দে তার শ্যালিকা অনিমা দে এবং তার মেয়ে তনুশ্রী দেকে ধারালো একটি দা দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপায় বলে স্থানীয়দের অভিযোগ৷

চিৎকার চেঁচামেচি শুনে ছুটে আসেন স্থানীয়রা৷ তাঁরাই আহত রক্তাক্ত অবস্থায় দুজনকে স্থানীয় হাবরা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান৷ সেখানে চিকিৎসকেরা প্রাথমিক চিকিৎসার পর দুলালবাবুর শ্যালিকা ও তাঁর মেয়েকে কলকাতার হাসপাতালে রেফার করেন৷। আপাতত তাঁদের শারীরিক অবস্থা সঙ্কটজনক৷ ওই ঘটনার পরই শনিবার রাতে অভিযুক্ত জামাইবাবু গোবরডাঙ্গা স্টেশন সংলগ্ন রেল লাইনে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

খবর পেয়ে গভীর রাতে বনগাঁ জিআরপি এসে দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। ঘটনায় ব্যবহৃত দা টি উদ্ধার করেছে গোবরডাঙ্গা থানার পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, অবসাদেই আত্মঘাতী হয়ে থাকতে পারেন তিনি৷ তবে তদন্তে সবদিকই খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷ ঘটনার জেরে দোল উৎসবের মাঝেও এলাকার পরিবেশ কার্যত থমথমে৷