Cyclone Jawad: বাংলাজুড়ে দুর্যোগ, পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে হাওড়ার ঘাটগুলি পরিদর্শনে সমবায় মন্ত্রী 

0
167

হাওড়া: অবশেষে মিলেছে স্বস্তি। ধীরে ধীরে শক্তি হারাচ্ছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ। পরিস্থিতি প্রতিকূল, তাই ল্যান্ডফল হবে না বলে আশা করা যাচ্ছে। ঘুর্ণিঝড়ের শক্তি সমুদ্রেই ক্ষয় হয়ে যাচ্ছে, এমনটাই জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। তবে জাওয়াদ’র শক্তিক্ষয়ে হলেও বৃষ্টি থেকে নিস্তার পাবে না বঙ্গবাসী। সোমবার পর্যন্ত নিম্নচাপের সম্ভাবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন-Cyber crime: পুর প্রশাসকের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে টাকা তোলার অভিযোগ, চাঞ্চল্য এলাকায়

এছাড়াও রবিবারও রাজ্যের একাধিক জেলায় অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে নিম্নচাপের জেরে হাওড়ায় সকাল থেকেই শুরু হয়েছে প্রবল বৃষ্টিপাত। এরই মধ্যে রবিবার বেলা ১০টা নাগাদ হাওড়ার গঙ্গার ঘাটগুলিতে নদীর পরিস্থিতি সরেজমনে খতিয়ে দেখতে আসেন রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায়।

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে যাবতীয় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যে কোনও রকমের পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে তৈরি পুরনিগনের বিপর্যয় মোকাবিলা দল ও ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স। এদিন পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে হাওড়ার রামকৃষ্ণপুর ঘাটে এসে রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায় প্রশাসনের কাজে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

আরও পড়ুন-Cyclone Jawad: রাত থেকেই উত্তাল সমুদ্র-নদী, ব্যবসা বাঁচাতে মরিয়া স্থানীয় ব্যবসায়ীরা

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, “সবরকম পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে প্রস্তুত প্রশাসন। যদিও আবহাওয়া দফতর সূত্রের খবর অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ তার শক্তি হারানোর ফলে আশঙ্কার কিছু না থাকলেও আমরা সতর্ক থাকব। বেশ কয়েকটি স্কুল বাড়ি তৈরি রাখা হয়েছে। যাতে প্রয়োজনে গঙ্গা নদীর তীরবর্তী অঞ্চলের বাসিন্দাদের সরিয়ে নিরাপদ আশ্রয়ে রাখা যায়। সেখানে পর্যাপ্ত পানীয় জল ও খাবারের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। পাশাপাশি রাস্তাঘাট এবং নিচু এলাকা জলমগ্ন হয়ে গেলে সেই জল দ্রুত বের করে দেওয়ার ব্যবস্থা ইতিমধ্যেই হাওড়া পুরনিগম নিয়েছে।”