এসে গিয়েছে স্মার্ট পেসমেকার, দ্রবীভূত হয়ে যায় শরীরের জলে

0
33

বিশ্বদীপ ব্যানার্জি: স্মার্টফোন, স্মার্ট ওয়াচ ইত্যাদি। সবকিছুই এখন স্মার্ট।‌ আর এর মধ্যেই চলে এল স্মার্ট পেসমেকার। যা, বলাই বাহুল্য, বিজ্ঞানের এক অভূতপূর্ব সাফল্য। জানা যাচ্ছে, এই পেসমেকার নাকি মানবদেহে দ্রবীভূত হয়ে যাবে ধীরে ধীরে। অর্থাৎ এটিকে অপসারণ করার প্রয়োজন নেই।

আরও পড়ুন: কোর্স ইংরেজিতে হলেও পরীক্ষায় উত্তর যে কোনও ভাষায় লেখা যাবে, UGC দিল নয়া নির্দেশিকা

- Advertisement -

গবেষকরা দাবি করেছেন, এই পেসমেকারকে তাঁরা ত্বকের ওয়্যারলেস সেন্সগুলির সঙ্গে যুক্ত করতে সক্ষম হয়েছেন। যা যখন প্রয়োজন, সেই মুহূর্তে-ই পেসিং অ্যাডজাস্ট করতে পারে। এই কার্যক্রমের কারণেই এই পেসমেকারকে স্মার্ট পেসমেকার বলা হচ্ছে। আরও বড় কথা, এই ডিভাইসটি ব্যবহার জন্য কোনও ব্যাটারি বা সেই জাতীয় অন্য কিছুর প্রয়োজন নেই।

সম্পূর্ণ জৈব শোষণযোগ্য ডিভাইস হিসেবে ডিজাইন করা হয়েছে এই পেসমেকারটিকে। এটি খুবই পাতলা একটি ডিভাইস। যা জলে দ্রবণীয় ধাতু এবং সমগোত্রীয় আরও নানা উপাদান দিয়ে গঠিত। গবেষকরা জানিয়েছেন, মাত্র কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এই ডিভাইস আমাদের শরীরের জলভাগে দ্রবীভূত হয়ে যাবে।

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

২০২১ সালে নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং জর্জ ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক সর্বপ্রথম এই স্মার্ট পেসমেকারকে জনসমক্ষে এনেছিলেন। এটির একাধিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এটি রোগির হার্টবিট মনিটর করতে পারবে। পাশাপাশি রোগির দেহের তাপমাত্রা-ও নাকি মাপা যাবে এই ডিভাইসের সাহায্যে।

বিজ্ঞানীরা ইতিমধ্যেই এটি ইঁদুর এবং কুকুরের দেহে পরীক্ষা করেছেন। তাতে সাফল্য মিলেছে। এবার লক্ষ্য মানবদেহ। এছাড়া এখনও পর্যন্ত এই ডিভাইসটিকে হার্টের বাইরে স্থাপন করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। কিন্তু বিজ্ঞানীদের উদ্দেশ্য এটিকে হৃদয়ের ভেতরে স্থাপন করা। যাতে এই ডিভাইস নিরাপদে দ্রবীভূত হতে পারে।