West Bengal: বাড়ছে অরাজকতা, একের পর এক ঘটনায় চাঞ্চল্য রাজ্যেজুড়ে

0
11

খাস ডেস্ক: রাজ্য জুড়ে বাড়ছে অরাজকতা। একের পর এক ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজ্যেজুড়ে। এই অরাজকতার পিছনে রয়েছে কারা? একাধিক ঘটনায় এই রকম অরাজকতা ঘটতে থাকলে তো বিপদ। তবে এই অরাজকতায় পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে একাধিক বার। এদিন ফের এমন দুটি ঘটনা ঘটল রাজ্যে।

বাঁকুড়ায় দাবি মতো চাঁদা না পেয়ে এক ব্যবসায়ীকে মারধোরের অভিযোগ উঠল কয়েক জন যুবকের বিরুদ্ধে। এদিন ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়া শহরের নতুনগঞ্জে। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই ব্যবসায়ী মহলে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন-North Dinajpur: ক্রেতা সুরক্ষা সমিতির উদ্যোগে পথ চলিত মানুষদের সহযোগিতা, অভিনব প্রয়াস উত্তর দিনাজপুরে

জানা গিয়েছে, ইন্দপুরের ডুমুরতোড় গ্রামের ব্যবসায়ী প্রণব কুণ্ডু মুদির দোকানের জিনিসপত্র কিনতে বাঁকুড়া শহরের ব্যবসায়ী পট্টি হিসেবে পরিচিত নতুনগঞ্জে আসেন। তাঁর অভিযোগ, ওই এলাকার একটি দোকানে জিনিসপত্র কেনার সময় এক দল যুবক তাকে ঘিরে ধরে কালীপুজোর জন্য টাকা চাঁদা দাবি করতে থাকে। তিনি চাঁদার টাকা গাড়িতে গিয়ে দেওয়ার কথা বললে তারা তাকে মারধোর করে। এমনকি উত্তেজিত হয়ে মাথাতেও আঘাত করা হয় বলে অভিযোগ।

এই ঘটনার পরে, বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশকে প্রাথমিক ভাবে বিষয়টি জানানোর পাশাপাশি আহত প্রণব কুণ্ডুকে বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। একইসঙ্গে ওই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে আকাশ বাউরী নামে একজনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। বৃহস্পতিবার পুলিশের পক্ষ থেকে ধৃতকে বাঁকুড়া জেলা আদালতে তোলা হয়।

অন্যদিকে, উত্তর দিনাজপুরে গাড়ির চাকা খুলে নিয়ে গেল দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। বুধবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানা কাঁচাকালী এলাকায়।

এবিষয়ে গাড়িচালক নাসিম আলী জানিয়েছেন, বুধবার তিনি গাড়ি নিয়ে রায়গঞ্জে ভাড়ায় গিয়ে ছিলেন। বাড়ি ফিরতে অনেকটা রাত হয়ে যায়। সাফারি গাড়িটি প্রতিদিনের মতন রাতেও কাঁচাকালী বাজারে রেখে বাড়ি চলে জান। পরে আবার তিনি গাড়িটি দেখতে আসেন। তখন অব্দি সব কিছুই ঠিক ছিল। হঠাৎ গভীর রাতে তার এক আত্মীয় এসে নাসিম আলীকে বলেন কেউ তার গাড়িটি খোলাখুলি করছে। তড়িঘড়ি গ্রাম বাসিদের নিয়ে দুষ্কৃতীদের তাড়া করেন তিনি।

আরও পড়ুন-La Nina: কাঁপতে পারে ভারত, ২০২২ সালের জানুয়ারিতে সবচেয়ে বেশি ঠাণ্ডার সাক্ষী হতে পারে দেশ

তারপরে গাড়ি কাছে আসলে ততক্ষণে তার গাড়ির সামনের দুটি চাকা ও গাড়িতে থাকা আরেকটি এক্সট্রা চাকা মোট তিনটি চাকা নিয়ে চুরি করে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। তার রোজগারে একমাত্র ভরসা এই গাড়িটি। এই গাড়ি চালিয়ে কিছু টাকা রোজগার তিনি সংসার চালান। এখন তার সাথে এই ঘটনা ঘটার পরে কি করবেন কিছুই বুঝে উঠতে পারছেন না। তিনি এবিষয়ে চোপড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করবেন বলে জানিয়েছেন। পাশাপাশি চোপড়ার পুলিশ প্রশাসনের কাছে এবিষয়ে সাহায্যের আবেদন করেন তিনি।