কর্মীদের ভেঙে পড়া মনোবলে অক্সিজেন জোগাতে বিশেষ উদ্যোগ বিজেপির

0
31
N Biren Singh

কলকাতা: ডাবল সেঞ্চুরি তো দূরে থাক সিঙ্গেল সেঞ্চুরিও জোটেনি৷ অধরায় রয়ে গিয়েছে বাংলার তখতে বসার স্বপ্নও৷ উলটে ভোট পরবর্তী পরিস্থিতিতে গেরুয়া শিবিরে ভাঙন অব্যাহত৷ জেলায় জেলায় ‘স্বত:স্ফূর্তভাবে’ কোথাও কান ধরে ওঠবোস করে, কোথাও বা মাথার চুল কামিয়ে ন্যাড়া হয়ে দল বদলাচ্ছেন কর্মীরা৷ অন্যদিকে কর্তৃত্বের দখল নিয়ে বঙ্গ বিজেপির অন্দরেও চলছে ঠাণ্ডা লড়াই৷ এহেন আবহে ঘর গোছাতে আগামী ২৯ জুন বৈঠকে বসতে চলেছে বঙ্গ বিজেপি৷

আরও পড়ুন: লকডাউনে কাজ খোয়ানো আত্মহননকারীকে মৃত্যুর চৌকাঠ থেকে ফিরিয়ে আনল কলকাতা পুলিশ

মুরলীধর সেন লেনের ওই বৈঠকে সশরীরে হাজির না থাকলেও সভায় ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখবেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জগৎপ্রকাশ নাড্ডা৷ সূত্রের খবর, দলের আগামীদিনের কর্মপন্থা নিয়ে সভায় বক্তব্য রাখবেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীও৷ কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক অরবিন্দ মেনন, শিবপ্রকাশেরও হাজির থাকার কথা ওই বৈঠকে৷

আরও পড়ুন: ‘ফিরিয়ে দাও আমার সেই ৮ বছর, না হলে করো বিয়ে’

দলীয় সূত্রের খবর, ভোট পরবর্তী পরিস্থিতিতে জেলায় জেলায় শাসকের লাগামছাড়া অত্যাচারে কর্মীরা ছত্রভঙ্গ৷ অনেকেই ঘরছাড়া৷ আবার অনেকে ফিরে গিয়েছেন তৃণমূলে৷ এহেন পরিস্থিতিতে জেলার নিচুতলার কর্মীদের মধ্যে থেকে রাজ্য নেতৃত্বকে পাশে না পাওয়ার অভিযোগও সামনে আসছে৷ এহেন পরিস্থিতিতে জেলায় জেলায় শাসকের চোখ রাঙানিকে রুখে দিয়ে কর্মীদের দলবদ্ধ করে রাখা, আইনি সহযোগিতা, ঘরছাড়াদের বাড়ি ফেরানোর বন্দোবস্ত করা এবং আগামী দিনে এলাকায় সংগঠনকে চাঙ্গা করতে ধারাবাহিক কর্মসূচি গ্রহণ- এসব নিয়েই আগামী ২৯ জুন বৈঠকে বসতে চলেছেন নেতৃত্বরা৷

দলের রাজ্যস্তরের এক নেতার কথায়, ‘‘হতে পারে আমরা ক্ষমতা দখল করতে পারিনি৷ কিন্তু ৩ থেকে ৭৭ এ পৌঁছানোটাও তো কম কথা নয়৷ তৃণমূল মুখে যাই বলুক না কেন, ওরা আমাদেরকে ভয় পেয়ে গিয়েছে৷ তাই জেলায় জেলায় আমাদের কর্মীদেরই টার্গেট করছে৷’’ স্বাভাবিকভাবেই পাল্টা রণ কৌশলের পথে হাঁটছে টিম গেরুয়া৷