দুর্গাপুজোর মেনুতে রাখুন নিরামিষ মাংস; রইল রন্ধন প্রণালি

0
33

কলকাতা: দুর্গাপুজো মানেই ঢাকে কাঠি জমজমাটি, নতুন জামা, অঞ্জলি, প্যান্ডেল হপিং আর জমিয়ে ভুরিভোজ। ষষ্ঠী থেকে দশমি রেস্তোরাঁ হোক বা বাড়ি, স্পেশাল খবার চাই ই চাই। সকালের জলখাবারে প্রিয় লুচি আলুরদম, কিমবা সন্ধ্যের টিফিনে ফিস কাটলেট, অষ্টমীর দুপুরে ভোগের খিচুরি বা নবমীর রাতে বিরিয়ানি, পুজোর সময় বাঙালির খাদ্যতালিকার ইয়ত্তা মেলা ভার। সম্পূর্ণ বাঙালি খাবারের পাশাপাশি রয়েছে রকমারি বিদেশি খাবারের বাহার।

কিন্তু প্রতিদিন হয়ত বাইরের খাবার খাওয়ার ইচ্ছে নেই। অথবা পুজোর দিনে গরমের মধ্যে হেঁসেলে ঢুকে সেদ্ধ হওয়ারও ইচ্ছে নেই আপনার। কিন্তু জিভ বলছে অন্য কথা। চারদিন নানা রকম পদ তো মন ভরে খেলেন। কিন্তু দশমিতে আস্তিন গুটিয়ে মাংসের ঝোলে কবজি না ডোবালে চলে! দশমিতে যদি গরম গরম সাদা ভাতের সঙ্গে পাতে পড়ে নরম তুলতুলে কচি পাঁঠার ঝোল? লোভ সামলানো ভার তাই না? তবে পেঁয়াজ, রসুন দিয়ে কষিয়ে তো এতদিন মাংস রান্না করলেন। এবার পুজোয় খুব সহজ পদ্ধতিতে বাড়িতে বানিয়ে ফেলতে পারেন নিরামিষ কচি পাঁঠার মাংস।

- Advertisement -

ঐতিহ্য অনুযায়ী মূলত কালির কাছে বলি দেওয়া পাঁঠা দিয়েই এই রেসিপি বানানো হয়। তবে দুর্গাপুজোর রসনাতৃপ্তিতেও বেশ লাগবে কচি পাঁঠার এই অভিনব রেসিপি। পেঁয়াজ রসুন ছাড়া এই পাঁঠার মাংস স্বাদ ও গন্ধে হয় অতুলনীয়। মাংস সেদ্ধ করার জন্য যদি দেন এক টুকরো সুপুরি তাহলে মুখে দিলেই মিলিয়ে যাবে। রান্নাঘরে থাকা সাধারন কিছু উপকরণ দিয়েই খুব সহজে তৈরি করা যাবে নিশামিষ মাংস। রইল সম্পূর্ণ উপকরণ তালিকা এবং রন্ধন প্রণালি।

উপকরণ

১) কচি পাঁঠার মাংস: ১ কেজি
২) আলু: কেটে নুন, হলুদ দিয়ে ভেজে রাখা ৮-১০ টুকরো
৩) নুন: ৪ চা চামচ
৪) টক দই: ২৫০ গ্রাম
৫) বিট নুন: ১ চ চামচ
৬) হলুদ বাটা: ২ চা চামচ
৭) আদা বাটা: দেড় টেবিল চামচ
৮) ধনে গুঁড়ো: দেড় টেবিল চামচ
৯) পাঁচ ফোড়ন: ৩/৪ চা চামচ
১০) ঘি: ১ কাপ
১১) সর্ষের তেল: আধ কাপ
১২) চিনি: ৬-৮ চা চামচ
১৩) শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো: ২ চা চামচ
১৪) কাঁচা লঙ্কা: ৬ টা (চেরা)
১৫) এলাচ: ৬ টা
১৬) দারুচিনি: ৮ কাঠি
১৭) তেজপাতা: ৪ টে
১৮) লবঙ্গ: ৬ টা
১৯) গরম জল: ১ লিটার

রন্ধন প্রণালি: ভালো করে জল ঝরানো মাংসে পরিমাণ মত নুন, হলুদ এবং আধ চামচ আদা বাটা দিয়ে দুঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখুন। দুই ঘণ্টা পর মাংসের টুকরো গুলোতে ভালো করে টকদই মাখিয়ে আরও দু ঘণ্টা ম্যারিনেশানে রেখে দিন।

কড়াইতে সর্ষের তেল গরম করে তেজপাতা এলাচ আর লবঙ্গ ফোড়নে দিন। কয়েক সেকেন্ড নাড়াচাড়া করে ম্যারিনেট করা মাংসের টুকরো গুলোকে তুলে তুলে দিয়ে দিন। ম্যারিনেশানের বাকি মশলাটা রেখে দিন।

বেশি আঁচে মাংসগুলোকে ১৫ মিনিট ধরে নাড়াচাড়া করার পর আঁচ কমিয়ে দিন।

অল্প আঁচে হালকা নাড়াচাড়া করে ১ ঘণ্টার জন্য ঢেকে দিন। ১০ মিনিট অন্তর ঢাকনা ঢুকে একটু করে নেড়ে দিন। একঘন্টা পর ঘি, ভেজে রাখা আলুর টুকরো, বাকি নুন, হলুদ আর শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো দিন। এবার তিন টেবিল চামচ জল দিয়ে ম্যারিনেশনের বাকি মশলাটা দিয়ে দিন। আঁচ বাড়িয়ে ২০ মিনিটের জন্য রেখে দিন। মাঝে মাঝে ঢাকনা খুলে নেড়ে দিন।

২০ মিনিট পর গরম জল দিয়ে বিট নুন, চিনি, চেরা কাঁচা লঙ্কা আর পাঁচ ফোড়ন দিয়ে ভালো করে নেড়ে আঁচ কমিয়ে কিছুক্ষন ঢাকা দিয়ে রাখুন।

মাংস সেদ্ধ হয়ে গেলে গরম গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।