ফসল খেয়েছিল হনুমান, গুলি করে হত্যা করল যুবক : রাস্তা অবরোধে বাসিন্দারা

0
128

হেঁড়িয়া: হনুমানকে গুলি করে হত্যা৷ ‘খবর’ পেয়েও পুলিশ নিস্ক্রিয়৷ এই অভিযোগে এবং অভিযুক্তের শাস্তির দাবিতে সড়ক অবরোধে বাসিন্দারা৷ যার জেরে তীব্র যানজটে নাস্তানাবুদ আমজনতা৷ পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরি-হেঁড়িয়া রাজ্য সড়কের দক্ষিণ তল্লা ব্রিজ সংলগ্ন এলাকার ঘটনা৷ অবশেষে পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করার পর শান্ত হন গ্রামবাসীরা৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বন দফতরের আধিকারিকেরাও।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর: গত কয়েকদিন ধরে খেজুরি সহ বিস্তীর্ণ এলাকায় তাণ্ডব চালাচ্ছিল একটি হনুমান৷ যার জেরে নষ্ট হচ্ছিল সবজির৷ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিলেন চাষিরা৷ এই ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে দীপ্তসূর্য ভারতী নামে এক যুবক হনুমানের তাণ্ডব রুখতে গুলি চালায় বলে অভিযোগ। গুলির আঘাতে মৃত্যু হয় হনুমানটির৷ শুক্রবার থেকে শনিবার৷ এভাবে প্রকাশ্যে বন্যপ্রাণীকে হত্যা করা হলেও পুলিশ নিস্ক্রিয়৷ এই অভিযোগ তুলে এবং অভিযুক্ত যুবকের শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হোন এলাকার বাসিন্দারা। শনিবার সকাল ১১ টা নাগাদ খেজুরি হেঁড়িয়া রাজ্য সড়কের দক্ষিণ তল্লা ব্রিজে হনুমানের মৃতদেহ দেখে অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু হয়৷ অবরোধের জেরে ব্যাপক যানজট তৈরি হয়। আটকে পড়ে একাধিক যাত্রীবাহী বাস।

- Advertisement -

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয় খেজুরি থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী৷ অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশকে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়৷ অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার না করা পর্ষন্ত তাঁরা অবরোধে অনড় থাকে৷ এরপরই পুলিশ অভিযুক্ত দীপ্তসূর্য ভারতী নামে ওই যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়৷ সেখান থেকে দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছেন বনকর্তারা৷ অভিযুক্ত গ্রেফতার হওয়ায় অবরোধ তুলে নেন গ্রামবাসীরা। হেঁড়িয়া ফাঁড়ির ইনচার্জ গৌরব মিত্র বলেন, “ওই যুবককে আটক করে থানায় রাখা হয়েছে। বন দফতরের পক্ষ থেকে হনুমানের দেহ উদ্ধার করে দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। অভিযোগ পেলে পুরো ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হবে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে৷’’ এদিকে হনুমানের মৃত্যুতে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া৷ বাসিন্দারা বলছেন, হোক না দুটো ফসল নষ্ট করেছে, তা বলে কি এভাবে প্রাণে মেরে ফেলা উচিত রামের ভক্তকে!

আরও পড়ুন: লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের আদলে মণ্ডপ, প্রতিদিন থাকছে নগদ ৫০০টাকা জেতার সুযোগ

downloads: https://play.google.com/store/apps/details?id=app.aartsspl.khaskhobor