এইভাবে মঙ্গলগ্রহ থেকে পাথর ও মাটির নমুনা নিয়ে আসবে NASA

0
19
Mars

খাস ডেস্ক: মহাকাশ নিয়ে মানুষের কৌতুহলের অন্ত নেই। পৃথিবীর আয়ু ক্রমশ শেষ হয়ে আসছে। আর সেই কারণে পৃথিবীর মতোই অন্য কোনও গ্ৰহে প্রাণের অস্তিত্ব রয়েছে কিনা সেই নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। চাঁদ থেকে ইতিমধ্যেই নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এবার মঙ্গল (Mars) গ্রহ থেকে প্রথমবার নমুনা নিয়ে আসা হবে। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা এবং ইউরোপীয় মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র (ESA) যুগ্মভাবে প্রথমবার মঙ্গল থেকে পাথর ও মাটি নিয়ে আসার চেষ্টা করছে। মঙ্গলের জেজরো ক্রেটারে (গর্তের) প্রাচীন ডেল্টা নদীখাতে একটি স্যাম্পল টিউব বসানোর কথা ভেবেছে এই দুই মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র। নমুনা সংগ্রহকারী একটি রোভারও বর্তমানে মঙ্গলের মাটিতে নিজের কাজ শুরু করে দিয়েছে।

আরও পড়ুন- আজ টিভিতে যা দেখবেন (২৩ নভেম্বর ২০২২)

- Advertisement -

ওই নমুনাগুলি সংগ্রের পর পরীক্ষা করা হলে জেজরো ক্রেটারের ইতিহাস জানা যাবে। সেইসঙ্গে কীভাবে মঙ্গল গ্রহ তৈরি হল এবং সেখানে কোনও প্রাণের অস্তিত্ব ছিল কিনা তাও জানা যাবে। উল্লেখ্য, মঙ্গলের মাটিতে শত কোটি বছর আগের বেশ কিছু সূক্ষ্ম সেডিমেন্টারি রক পাওয়া গিয়েছে। যা থেকে লালগ্ৰহে (Mars) আণুবীক্ষণিক প্রাণ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। শুধু তাই নয়, প্রাচীনকালের মঙ্গলগ্রহ বর্তমানের থেকে অনেক আলাদা ছিল বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। জেজরো ক্রেটার (গর্ত)-র কাছে একটি জায়গা, যেটিকে বিজ্ঞানীরা “ইওরি পাস” বলে থাকেন, ইতিমধ্যেই নমুনা সংগ্রহের কাজ করছে রোভারটি। প্রাচীন নদিখাত ডেল্টার কাছ থেকে পাওয়া পাথরগুলি কৌতূহল সৃষ্টি করেছে।

আরও পড়ুন- Horoscope: বুধে একাধিক রাশি জাতকের অমঙ্গল যোগ, জানুন রাশিফল 

বেশ কিছু বেলেপাথরের মত খন্ড উদ্ধার হয়েছে, যা থেকে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন লালগ্রহের কোথাও জলের অস্তিত্ব ছিল এবং সেখান থেকেই পাথরগুলি কোনোভাবে গড়িয়ে এসেছে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। নমুনা সংগ্রহ এবং সংরক্ষণের কাজে নিযুক্ত বিজ্ঞানী ক্যাটি স্ট্যাক মরগান বলেন, “খুন সূক্ষ্ম বেলেপাথরের কণা থেকে ওই পাথরগুলি তৈরি হয়েছে। যা নিয়ে গবেষণা করলে মঙ্গল সম্পর্কে অনেককিছু জানা যেতে পারে”। উল্লেখ্য, মঙ্গলে (Mars) নমুনা সংগ্রাহক রোভারটি প্রায় ১৪ টি পাথরের নমুনা সংগ্রহ করেছে সেইসঙ্গে বায়ুমন্ডলের নমুনাও সংগ্রহ করে রোভারটির পেটের মধ্যে একটি প্রকোষ্ঠে রাখা হয়েছে। ওই রোভারে করেই পৃথিবীতে নমুনাগুলি নিয়ে আসা হবে।