পূর্ণাঙ্গ রূপ পেল পদ্মা সেতুর সড়কপথ, শীঘ্রই হবে উদ্বোধন

0
54

খাস খবর ডেস্ক: দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান। আগামী ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের  ঘোষণা করেছে সরকার। সেতুটি উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইতিমধ্যে মূল সেতুর পর দুই প্রান্তের ভায়াডাক্টের কার্পেটিংও শেষ হয়েছে। এখন রেলিং ও রেলিংপোস্ট এবং দুই পাড়ে অস্থায়ী সাবস্টেশনে বিদ্যুত্‍ সংযোগের কাজ চলছে। তবে শীঘ্রই কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে জানা গিয়েছে। মঙ্গলবার বাংলাদেশের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়ুদুল কাদের একথা জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ ভাল্লুকের তাড়া খেয়ে ল্যাজ গুটিয়ে জঙ্গল ছেড়ে পালাল বাঘ

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, পদ্মা সেতুর নাম পদ্মা নদীর নামেই রাখা হবে। বঙ্গবন্ধু পরিবারের কারও নামে এই নাম রাখা হবে না। এর আগে গত ১৭ মে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের তারিখ ঘোষণার বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, পদ্মাসেতুর উদ্বোধনের তারিখ শেখ হাসিনাই নির্ধারণ করবেন। এই নিয়ে দলীয় একেক নেতা একেক তারিখ না দেওয়ার অনুরোধ করেছিলেন তিনি।

মূল সেতুর পর এখন সংযোগ সেতুর কার্পেটিংও শেষ। পুরো সেতু জুড়েই এখন ব্ল্যাকটপ। আর রাতে আলো ছড়াতে দুই পাশের প্যারাপেটের নির্দিষ্ট দূরত্বে দাঁড়িয়ে ল্যাম্পপোস্ট। চলছে বিমানে আসা প্রথম ও দ্বিতীয় চালানের রেলিং ও রেলিংপোস্ট স্থাপন। অন্যদিকে সমুদ্রপথে আসা রেলিংয়ের বড় চালানটি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে প্রকল্প এলাকায় নিয়ে আসার প্রক্রিয়া চলছে। সেতুতে রোড মার্কিং চলছে পুরোদমে। দুই পারে নাম ফলক ও ম্যুরালের কাজ শেষের দিকে এখন। মঙ্গলবার জাজিরা প্রান্ত থেকে ম্যুরাল স্থাপন শুরু হচ্ছে। দুই পাড়ে বিদ্যুতের অস্থায়ী সাব স্টেশনে বিদ্যুত্‍ সংযোগের কাজ শুরু হয়েছে। আধুনিক টোল প্লাজাও প্রস্তুত হচ্ছে। সেতু খুলে দেওয়ার এই খবরে ইতিমধ্যেই দারুণ খুশি পদ্মাপাড়ের মানুষ।

আরও পড়ুনঃ ২৪ টি পরিবারের এক কোটি টাকা দিয়ে আইপিএল চলত বেটিং, গ্রেফতার পোস্টমাস্টার

পদ্মা সেতু প্রকল্পের সংশোধিত ব্যয় ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। গত এপ্রিলের শুরুতে পাওয়া পদ্মা সেতুর অগ্রগতির প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রকল্পের সার্বিক কাজের অগ্রগতি ছিল ৯২ শতাংশ। ওই সময় নদীশাসনের কাজ শেষ হয়েছিল ৯০ দশমিক ৫০ শতাংশ। এ ছাড়া মূল সেতুর কার্পেটিং কাজ হয়েছিল ৬৬ শতাংশ। গ্যাস পাইপলাইনের কাজের অগ্রগতি ছিল ৯৯ শতাংশ এবং ৪০০ কেভি বিদ্যুত্‍ লাইনের কাজের অগ্রগতি ছিল ৭৯ শতাংশ।