সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একসঙ্গে কাজ করতে সম্মতি প্রকাশ ভারত-বাংলাদেশের

0
29

ঢাকা: বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক বরাবরই ভাল। যেকোনো সমস্যায় বাংলাদেশের পাশে দাঁড়াতে দেখা যায় ভারতকে। এবার দুই দেশ একসঙ্গে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে একে অপরকে।  বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা বুধবার এখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎ-এর সমইয়েই সন্ত্রাস দমনে একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করেন।

বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা ১৯৯৪-ব্যাচের ভারতীয় ফরেন সার্ভিস অফিসার। গত ২৭ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে তাঁর পরিচয়পত্র পেশ করার এক মাস পরে হাসিনার  সঙ্গে দেখা  করলেন তিনি। প্রণয় ভার্মা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  সঙ্গে তাঁর  সরকারি বাসভবন বৈঠকের সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখপাত্র জানিয়েছেন, “ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলির জন্য একটি নীতি রয়েছে। তবে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায়। যেকোনো ক্ষেত্রেই বাংলাদেশ সর্বদা অগ্রাধিকার পায়।”  বাংলাদেশ ভারতের “খুব ভালো বন্ধু” বলে উল্লেখ করে প্রণয় ভার্মা বলেন, এই অঞ্চলে সন্ত্রাসবাদ নির্মূল করতে দুই দেশ একসঙ্গে কাজ করবে।

- Advertisement -

রাষ্ট্রদূতের মন্তব্যের উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ তার মাটি সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করতে দেবে না বলে অঙ্গীকার করেছে। হাসিনা আরও বলেছেন, “ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ কখনই সন্ত্রাসবাদকে প্রশ্রয় দেয় না এবং সে উদ্দেশ্যে বাংলাদেশের মাটি ব্যবহার করতে দেয় না।” তিনি আরও বলেন, তার সরকার বিশ্বাস করে যে সন্ত্রাসের কোনো ধর্ম ও সীমানা নেই। হাসিনার কোথায়, তিনি বিশ্বাস করেন যে বাংলাদেশ ও ভারত তিস্তা নদীর পানি বণ্টনসহ সব অমীমাংসিত সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে পারবে। পিএমওর মুখপাত্রের মতে, ভার্মা হাসিনাকে বলেছিলেন যে সাম্প্রতিক সময়ে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এবং সংযোগ উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে, অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন যে তিনি আশা করেন ভারতীয় ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করবে।