ইমরান খান বিরোধীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ পাকিস্তানে

0
51

খাস খবর ডেস্ক: অনাস্থা ভোটের আগেই প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কথায় পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আরিফ আলভি। এ নিয়ে তুমুল চাপে ইমরান। তাঁর বিরুদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ আনছে বিরোধীরা। কিন্তু সত্যিই কী সংবিধান লঙ্ঘন হয়েছে পাকিস্তানে?

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

ঠিক এই প্রশ্নটিই করেছেন পাক সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি উমর আতা বান্ডিয়াল। সুপ্রিম কোর্টে শুরু হওয়া তৃতীয় দিনের বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি আলভির আইনজীবীকে এই প্রশ্ন করেন তিনি। যার উত্তরে আলভির আইনজীবী সেনেটর আলি জাফর বলেন, “আমিও বলছি, দেশে কোনও সাংবিধানিক সংকট দেখা দেয়নি। সংবিধান কোনোভাবেই লঙ্ঘন করা হয়নি।”

কোনও কারণে হঠাৎ করেই রাষ্ট্রপতিকে প্রধানমন্ত্রীর সংসদ ভেঙে দিতে অনুরোধ করা পাকিস্তানের সংবিধানে স্বীকৃত। ইমরান খান তো ঠিক সেই কাজই করেছেন। তাহলে আর তিনি সংবিধান লঙ্ঘন করলেন কোথায়? প্রধান বিচারপতি এবং রাষ্ট্রপতির আইনজীবী এই বিষয়টিই তুলে ধরতে চেয়েছেন।

আরও পড়ুন: গণহত্যার জের, রাশিয়ার কাছ থেকে এবারে প্রযুক্তি-ও কেড়ে নেওয়া হচ্ছে

তারা পরোক্ষভাবে এ কথাই বোঝাতে চান, সংবিধান যদি কেউ বা কারা ভেঙে থাকে তো তা হল বিরোধীরা। যে কাজ সংবিধান কর্তৃক স্বীকৃত। তাকে সংবিধান লঙ্ঘনের আখ্যা দিয়ে বিরোধীরা তো নিজেরাই পরোক্ষে সংবিধানের অপমান করলেন। আর সংবিধানের অপমান মানেই রাষ্ট্রদ্রোহিতা। কার্যত বিরোধীদের বিরুদ্ধে-ই পরোক্ষে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ আনা হল।