প্রলয়ঙ্করী নয়, উল্টে গোটা গ্রামকে প্রাণে বাঁচাল বন্যা

0
43

খাস খবর ডেস্ক: বন্যামাত্রেই প্রলয়ঙ্করী, এমন মোটেই নয়। বরং এই বন্যার কারণেই রুশ সেনাবাহিনীর হাত থেকে রক্ষা পেল দেমিদিভ নামক ইউক্রেনের একটি গ্রাম। জানা যাচ্ছে, কিয়েভের উত্তরে অবস্থিত এই গ্রাম রাশিয়ার আক্রমণের হাত থেকে নিস্তার পেতে ইচ্ছাকৃত বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে।

আরও পড়ুন: ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত ম্যাকডোনাল্ড’সের

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

গ্রামটির পাশ দিয়ে বয়ে গিয়েছে এরপিন নদী। যুদ্ধের প্রথমদিকে দেমিদিভে অবস্থানকারী ইউক্রেনীয় সেনারা নদীর একটি বাঁধ খুলে যায়। ফলে গ্রামটি এবং সেইসঙ্গে সংলগ্ন কয়েক হাজার একর জমি পুরো জলে ডুবে যায়। ডুবে গিয়েছে ফসলের ক্ষেত এবং ভূগর্ভস্থ শস্যের ভাণ্ডার-ও।

কিন্তু এই ক্ষতিকে কার্যত ক্ষতি বলতে নারাজ গ্রামবাসীরা। এই বন্যার কারণেই ইউক্রেনীয় সেনার প্রতিরক্ষা লাইন ভেদ করে এই গ্রামের পথ ধরে রাজধানী কিয়েভের দিকে অগ্রসর হতে পারেনি শত্রুপক্ষ। এ প্রসঙ্গে জনৈক গ্রামবাসী এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, “এই বাঁধ খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত অবশ্যই ভাল ছিল। কী হত যদি এই নদী পার করে রাশিয়ার ফৌজ কিয়েভে ঢুকে পড়ত?”

অর্থাৎ নিজের নাক কেটে পরের যাত্রাভঙ্গ। ব্যাপারটি অনেকটা সেইরকম-ই। আরেক গ্রামবাসীর কথায়, “বন্যায় ক্ষেতের এক-তৃতীয়াংশের-ও বেশি ডুবে গিয়েছে। যেটুকু শুকনো জমি রয়েছে, গ্রামবাসীরা সকলে মিলে শাকসবজি রোপণের চেষ্টা করছেন।” জানা গিয়েছে, চলাচল করতে সাধারণ মানুষ রবারের ডিঙি নৌকা ব্যবহার করছেন।