‘প্রাণ নিয়ে মৃতদেহের সামনে প্রার্থনা করতে এসেছ’, পুলিশি হেফাজতে নিহত তরুণীর বাবার বিস্ফোরক অভিযোগ

0
22

খাস ডেস্ক: সঠিকভাবে হিজাব না পড়ার অপরাধে আটক ২২ বছরের তরুণীর মৃত্যুর প্রতিবাদে গর্জে উঠেছে ইরান। থানায় আগুন লাগিয়ে চলছে বিক্ষোভ। প্রতিবাদে নেমেই গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন একাধিক। এবার এই ঘটনায় মুখ খুললেন নিহত মাহসা আমিনির বাবা আমজাদ আমিনি।

আরও পড়ুন: রিমুভ এটিকে প্রতিবাদে জড়ানোয় এটিকে মোহনবাগান থেকে চাকরি গেল এই গুরুত্বপূর্ণ সদস্যের

- Advertisement -

সূত্রে খবর, ইরানের পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে আমজাদ দাবি করেছেন, সকলে মিথ্যে কথা বলছে। তাঁর বারবার অনুরোধের পরও মেয়েকে শেষবার দেখতে দেওয়াও হয়নি। এছাড়া, মেয়ের দেহের সামনে ইসলামিক রীতি পালন করতেও অস্বীকার করেন। এ নিয়ে আমজাদ আমিনি ক্ষোভের সুরে কিছুজনের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘তোমার ইসলাম তাঁর নিন্দা করেছিল। এখন তুমি এসেছ তাঁর জন্য প্রার্থনা করতে? তোমার নিজের প্রতি লজ্জা-ঘৃণা হচ্ছে না। সামান্য একটি কারণে তাঁকে মেরে ফেলা হয়েছে। তোমাদের ইসলাম নাও এবং দূর হয়ে যাও।’

অন্যদিকে, ইরানের রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম রইসি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, ইব্রাহিম রইসি মাহসা আমিনির মৃত্যুকাণ্ডে যথাযথ তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘কর্তৃপক্ষ এবং প্রশাসন তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে করবে।’

আরও পড়ুন: ভোটদানের নিয়মে পরিবর্তন আনতে চায় কমিশন, কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রককে চিঠি নির্বাচন কমিশনারের

প্রসঙ্গত, পুলিশি হেফাজতে তরুণীর মৃত্যুর পর ইরানের বহু মহিলা হিজাব বিরোধী আন্দোলন শুরু করে। মাথার চুল কেটে, হিজাব আকাশে উড়িয়ে দেয় তাঁরা। পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিতে ব্যর্থ হয়। ইরানের ৩০ টিরও বেশি শহরে বিক্ষোভ শুরু হয়। এখনও পর্যন্ত ৩১ জন বিক্ষোভকারীদের মৃত্যু হয়েছে।