এবার ১২ বছরের ঊর্ধ্বে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী

0
17

খাসখবর ডেস্ক: মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ের বিপর্যস্ত গোটা বাংলাদেশ। তবে আগের তুলনায় এখন বাংলাদেশের পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এই সময় টিকাকরণের ওপর জোর দিচ্ছে হাসিনা সরকার। ইতিমধ্যেই ১২ বছরের ঊর্ধ্বে ছাত্র-ছাত্রীদের করোনা টিকার অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্য গ্রহণ করেছে হাসিনা সরকার।

প্রসঙ্গত, এর আগেও করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে স্বাস্থ্যবিধি মানতেই হবে। তা ছাড়া অন্য কোন উপায় নেই বলেই জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবিষয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, টিকা নেওয়া হোক কিংবা না নেওয়া হোক, স্বাস্থ্যবিধি মানতেই হবে। টিকা নেওয়ার আগে যেমন করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আসছি, ঠিক একই রকমভাবে টিকা নেওয়ার পরেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। না হলে মহামারীকে আটকানো সম্ভব হবে না।

আরও পড়ুন-মাদ্রাসা থেকে নিখোঁজ তিন পড়ুয়া, তদন্তে নামল পুলিশ

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “হয়তো আগের তুলনায় এখন বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। অনেকেই ইতিমধ্যে করোনার দুটি ডোজ নিয়েছেন। তবে টিকা নিলেও সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। একের পর এক সংসদ সদস্যকে আমরা হারাচ্ছি। এ চলতি অধিবেশনে তিনজন এমপি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন, যা সত্যি বেদনাদায়ক।”

এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, “গোটাদেশে মোট ৮০ শতাংশ মানুষকে টিকার অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন বাংলাদেশ সরকার। পাশাপাশি চলতি বছরের মধ্যেই ৫০ শতাংশ মানুষকে টিকার অন্তর্ভুক্ত করার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুসরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সরকার। হয়তো কোভিড মহামারি একটু কমের দিকে আছে। ইতিমধ্যে অনেকেই দুই ডোজ বা এক ডোজ টিকাও নিয়েছেন। তবে টিকা নিলেও সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।”

আরও পড়ুন-মেক্সিকোর প্রাক্তন কার্টেল বসকে ২৮ বছরের কারাদণ্ডের নির্দে

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছর ৮ মার্চ। প্রথম রোগী শনাক্ত এর ১০ দিন পর অর্থাৎ ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে প্রশাসন। এখনও পর্যন্ত বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৭ হাজার। দেশে করোনায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লক্ষ ৩৩ হাজার জনে। এখনও পর্যন্ত সর্বমোট করোনা সারিয়ে সুস্থ হয়েছেন ১৪ লক্ষ ৮৩ হাজার।