ভালবাসার কাছে কাঁটাতারের সীমানা তুচ্ছ, প্রেমের টানে এসে ধৃত বাংলাদেশি যুবক

0
34

খাস খবর ডেস্ক: এ যেন বলিউডের ছবি। প্রেমিকা এক দেশের নাগরিক। প্রেমিক আবার অন্য দেশের। প্রেমিকাকে কাছে পেতে প্রেমিক অবৈধভাবে সেই দেশে যাবে। তারপর জড়িয়ে পড়বে পুলিশের জালে। বাস্তবেও দেখা গেল ঠিক একই চিত্র।

আরও পড়ুন: জ্ঞানবাপী মসজিদের অযু করার পুকুর এখন কার্যত একটি দুর্গ

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

মনা চন্দ্র রায় বাংলাদেশের পঞ্চগড়ের বাসিন্দা। যার সঙ্গে প্রেম হয় জলপাইগুড়ি এক তরুণীর। পাঁচ বছর আগে সীমান্তের এক মিলন মেলায় দুজনের আলাপ। তারপর আর দেখা হওয়ার সুযোগ আসেনি। সোশ্যাল মিডিয়া আর ফোনেই সম্পর্ক গড়াতে থাকে। কিন্তু দুধের স্বাদ কি আর ঘোলে মেটে? খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রেমিকাকে একটু ছুঁয়ে দেখতে ইচ্ছে হয়েছিল মনার। তাই সব বাধা তুচ্ছ করেই মানিকগঞ্জ সীমান্ত পেরিয়ে এপারে চলে এসেছিল সে। সঙ্গে ছিল না কোনও বৈধ কাগজপত্র।

ফিরে যাওয়ার সময়ই বিপত্তি। বিএসএফের জালে ধরা পড়ে যায় মনা। তার কাছে বাংলাদেশি টাকা ছাড়াও মালয়েশিয়ায় মুদ্রা পাওয়া গিয়েছে। যদিও তার ব্যখ্যা দিচ্ছে মনা। ভারতীয় পুলিশকে সে জানিয়েছে, এই পাঁচ বছরে একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ পেয়ে মালয়েশিয়ায় চলে যেতে হয়েছিল তাঁকে।

এছাড়াও সে জানাচ্ছে, প্রেমিকা-ও নাকি তাঁকে বারবার আসার জন্য চাপ দিচ্ছিল। সে কারণেই এতবড় ঝুঁকি নিয়ে বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই সীমান্ত পার করেছে সে। অতঃপর জলপাইগুড়ির চাউলহাটিতে প্রেমিকার বাড়িতে বেশ কয়েকদিন কাটিয়েওছে সে। বিধি বাম হল ফিরে যাওয়ার সময়। জলপাইগুড়ির মানিকগঞ্জ সীমান্তের জিরো পয়েন্টে ধরা পড়ে যেতে হল সীমান্তরক্ষীদের কাছে। বুধবার তাকে জলপাইগুড়ি জেলা আদালতে তোলা হলে বিচারক ১৪ দিনের জেল হেফাজত দিয়েছে।