নাবালককে অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতার যুবতী

0
31

নিজস্ব সংবাদদাতা, কাঁথি: নাবালিকাকে অপহরণের ঘটনা পূর্ব মেদিনীপুর সহ রাজ্যে পরিচিত বিষয়। কিন্তু এবার একেবারে ভিন্ন চিত্র দেখা গেল পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরিতে। ১৬ বছর বয়সী নাবালককে অপহরণ করার অভিযোগ উঠল এক যুবতীর বিরুদ্ধে। নাবালকের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত যুবতীকে গ্রেফতার করল পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর খেজুরি থানার দেখালি এলাকার। খেজুরি থানার পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত যুবতীর নাম মাসুম খাতুন। বাড়ি চণ্ডীপুর থানার কোর্টবাড় গ্রামে। মঙ্গলবার যুবতীকে কাঁথি আদালতে তোলা হয়। পাশাপাশি উদ্ধার নাবালকের গোপন জবানবন্দি গ্রহণ করেন কাঁথি আদালতের বিচারক।

- Advertisement -

নাবালকের অপহরণ ঘিরে উঠেছে একাধিক প্রশ্ন? ঠিক কি কারণে ওই নাবালককে অপহরণ করা হয়েছিল? প্রেম-ভালোবাসা নাকি এর পিছনে অন্য কোন কারণ আছে? সব প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে পুলিশ৷ নাবালক অপহরণের যুবতী গ্রেফতারে ঘটনায় খেজুরি ও চণ্ডীপুরে হতভম্ব এলাকাবাসী৷

সূত্রের খবর, জুন মাসের প্রথম দিকে খেজুরি দেখালি গ্রামের এক নাবালক রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়। দীর্ঘদিন খোঁজাখুঁজির পরেও তাকে পাইনি পরিবারের সদস্যরা। ঘটনা জানাজানি হতেই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। এরপর নিখোঁজ নাবালককে ফিরে পেতে খেজুরি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তার পরিবারের সদস্যরা।

অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামে পুলিশ। জানতে পারে ওই নাবালককে অপহরণ করেছে চণ্ডীপুরের এক যুবতী। এরপর সোমবার রাতে খেজুরি থানার পুলিশের একটি তদন্তকারী দল চণ্ডীপুরে হাজির হয়। সেখানকার পুলিশের সহযোগিতায় নিখোঁজ নাবালককে উদ্ধার করে।

এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে এক যুবতীকে গ্রেফতার করে। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। খেজুরি থানার এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, ‘‘এই ঘটনার তদন্তে নেমে এক যুবতীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাশাপাশি নিখোঁজ নাবালককে উদ্ধার করা হয়েছে। ঠিক কি কারণে এমন ঘটনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’’