কল লেটার দেখেই সন্দেহ হয়েছিল, চাকরি পেতে চুক্তি হয়েছিল লাখ লাখ টাকার, সূত্র

সেই সময় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের ২০১৪, ২০১৭ সালের শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ ছিল চলছিল

0
56
fake job candidate arrest

সল্টলেক : প্রাইমারি বোর্ডের অফিসে পাকড়াও ২ ভুয়ো চাকরিপ্রার্থী। ধৃতরা দক্ষিণ দিনাজপুরের  গঙ্গারামপুরের বাসিন্দা। গতকালই অভিযুক্তদের গ্রেফতার (arrest) করে বিধাননগর থানার পুলিশ। আজ, রবিবার তাঁদের আদালতে তোলা হয়।

আরও পড়ুন :স্বামী-শ্বশুরের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ বধূর, ধৃত ২

- Advertisement -

গঙ্গারামপুরের বাসিন্দা প্রীতম ঘোষ ও বিষ্ণু মাহাত। একই পাড়ায় থাকেন দুজন। গতকাল অর্থাৎ শনিবার ২ জনকে গ্রেফতার (arrest) করে পুলিশ। সূত্রের  খবর, ধৃত বিষ্ণু মাহাত একজন প্রাইমারি স্কুল শিক্ষক । ইন্টারভিউ দিতে সল্টলেক এপিসি (APC) ভবনে যান প্রীতম। জানা গেছে প্রীতম বিষ্ণু মাহাতকে পঞ্চাশ হাজার টাকা দিয়েছিলেন।  চাকরি হয়ে গেলে আরও সাড়ে চার লাখ টাকা দেওয়ার কথা ছিল। মোট পাঁচ লাখ টাকার চুক্তি  হয়েছিল। ধৃত দুজনকে  বিধাননগর আদালতে তোলা হয়। ধৃতদেরকে হেফাজতে নিয়ে গোটা ঘটনার তদন্ত করবে বিধাননগর পূর্ব থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন :রাজ্যে চাকরির মেলা, ১২ হাজার শূন্যপদে কর্মী নিয়োগের সুযোগ নিয়ে আসছে WB Job Fair 2023

আরও পড়ুন :মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের নামের পিছনে জুড়ল নতুন পদবী, শোরগোল রাজনৈতিক মহলে

প্রসঙ্গত শনিবার প্রাইমারি বোর্ডে ইন্টারভিউ চলাকালীন দুজনকে গ্রেফতার (arrest) করা হয়। ওই দিন সকাল থেকেই পর্ষদে ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া শুরু হয়। সকল চাকরিপ্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। তাঁদের মধ্যেই দুজনের কল লেটার দেখে সন্দেহ হলে তাঁদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। খবর পেয়ে পৌঁছায় বিধাননগর পূর্ব থানার পুলিশ। জবাবে অসংগতি মেলায় তাঁদের গ্রেফতার করা হয়।  শনিবার পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের ২০১৪, ২০১৭ সালের শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ ছিল। দক্ষিণ দিনাজপুরের ৪৫০ জন চাকরিপ্রার্থীকে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছিল। উল্লেখ্য নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে জেরবার রাজ্য রাজনীতি। গত বছর একের পর এক গ্রেফতার হয়েছে শাসকদলেরএকাধিক নেতা। আন্দোলন হয়েছে। চাকরি খুয়েছেন বহু শিক্ষক। এই সবের মাঝে ফের ভুয়ো চাকরিপ্রার্থীর সন্ধান। আশঙ্কা বাড়িয়ে দিল বহুগুণে।