দেখা মিলল শিলা বৃষ্টির, স্বস্তির শ্বাস, সঙ্গে মুকুল ঝরার আক্ষেপও

0
176

বাঁকুড়া ও কলকাতা: হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস সত্যি করে রবিবাসরীয় বিকেলে বৃষ্টির দেখা মিলল বাঁকুড়া সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায়৷ এদিন দুপুর থেকেই আকাশ ছিল ঘন কালো মেঘে ঢাকা৷ সঙ্গে বইতে শুরু করে ঝোড়ো হাওয়া৷ এরপরই তুমুল বৃষ্টি৷ বাঁকুড়ার একাংশে আবার ব্যাপক শিলাবৃষ্টিও হয়েছে৷ সবমিলিয়ে চৈত্র্যের তাপদাহের হাত থেকে রেহাই মেলায় দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে স্বস্তির ছাপ দেখা গিয়েছে৷ একই সঙ্গে কাল বৈশাখীর ঝোড়ো হাওয়া এবং শিলা বৃষ্টির দাপটে আমগাছের বিস্তর মুকুল ঝরায় আক্ষেপ দেখা গিয়েছে আমপ্রেমীদের অন্দরে৷
এদিন দুপুর থেকেই ঘন কালো মেঘে ঢেকে ছিল পশ্চিম মেদিনীপুরের আকাশ৷ ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে তুমুল বৃষ্টি৷ মেদিনীপুর, খড়গপুর সহ বিস্তৃর্ণ এলাকায় হয়েছে বৃষ্টি৷ বিকেল পাঁচটার কিছু পর বাঁকুড়ার উত্তর থেকে দক্ষিণ সর্বত্র আকাশ কালো মেঘে ঢেকে যায়। সাড়ে পাঁচটা নাগাদ ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে শুরু হয় তুমুল বৃষ্টি। কোতুলপুর এলাকা থেকে ব্যাপক শিলাবৃষ্টির খবর পাওয়া যাচ্ছে। প্রায় ছ’মাস পর এই বৃষ্টিতে স্বস্তির নিঃশ্বাস জেলা জুড়ে৷ বাসিন্দারা বলছেন, তীব্র তাপদাহের হাত থেকে রেহাই মিলল৷

একই সঙ্গে ঝরছে আক্ষেপও৷ কারণ, এবারে জাঁকিয়ে শীত পড়ার দৌলতে আমগাছ গুলিতে এসেছিল বিস্তর মুকুল৷ স্বাভাবিকভাবে, অন্যবারের তুলনায় এবারে আমের ফলনও অত্যধিক হওয়ার আশা দেখা গিয়েছিল৷ কিন্তু যেভাবে কালবৈশাখী দাপট বাড়াচ্ছে তাতে শেষ পর্যন্ত গাছে কত আম থাকবে তা নিয়েই সংশয় তৈরি হয়েছে আম প্রেমীদের অন্দরে৷ এদিনের ঝোড়ো হাওয়া এবং প্রবল বৃষ্টির দাপটে একাধিক আমগাছের ফলন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলেই জানাচ্ছেন সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দারা৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন: বিজেপি নয়, শুভেন্দুর খাসতালুকে দাপট বাড়ছে সিপিএমের