21 C
Kolkata
Tuesday, January 18, 2022
Home জেলার খবর ৩৫০ বছরের পুরনো রীতি মেনেই আজও পূজিত হন চাঁচলের রাজবাড়ির সিংহবাহিনী

৩৫০ বছরের পুরনো রীতি মেনেই আজও পূজিত হন চাঁচলের রাজবাড়ির সিংহবাহিনী

মালদহ: সপ্তদশ শতাব্দীর শেষভাগ৷ সেই সময় উত্তর মালদহের বিস্তীর্ণ এলাকার রাজা ছিলেন রামচন্দ্র রায়চৌধুরি৷ শুধু বাংলা নয়, বিহারের কিছু অংশও তাঁর রাজত্বের অন্তর্ভুক্ত ছিল৷ দোর্দণ্ডপ্রতাপ হলেও প্রজাদরদী এবং ধর্মপ্রাণ হিসাবে তাঁর নাম ছড়িয়ে পড়েছিল পূর্ব ভারত জুড়ে৷ ঘরে বসে নয়, হাতির পিঠে চেপে তিনি নিয়মিত বেরিয়ে পড়তেন নিজের রাজত্ব দেখাশোনা করতে৷ গঙ্গা-মহানন্দার দুপাড়ে উর্বরা জমির চাষ পরিদর্শন, প্রজাদের সুখ-দুঃখের খবরাখবর নেওয়া ছিল তাঁর রোজনামচা৷ রাজবাড়ি থেকে বেরোনোর পর কখনও কয়েকদিন, কখনও বা মাসাধিককাল পেরিয়ে ঘরে ফিরতেন৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন-করোনা আবহে প্রাচীন রীতি ও ঐতিহ্য মেনে আজ থেকে শুরু হল বড় ঠাকুরাণীর পুজো

কথিত আছে, একবার তিনি যখন এভাবেই রাজত্ব দেখতে বেরিয়ে বাইরে রাত কাটাচ্ছিলেন, তখন তাঁকে স্বপ্নাদেশ দেন দেবী চণ্ডী৷ তিনি রাজাকে আদেশ দিয়েছিলেন, মহানন্দার সতীঘাটায় তাঁর চতুর্ভুজা অষ্টধাতু নির্মিত মূর্তি রয়েছে৷ রাজাকে সেই মূর্তি প্রতিষ্ঠা করতে হবে৷ শুরু করতে হবে দুর্গাপুজো৷ দেবীর আদেশ পেয়ে পরদিন সকালেই সতীঘাটায় চলে যান রাজা৷ রাজা স্বপ্নাদেশে বর্ণিত জায়গায় নদীতে নেমে তুলে আনেন দেবী চণ্ডীর মূর্তি৷ সেবার থেকেই শুরু হয় রাজবাড়ির দুর্গাপুজো৷ সেই পুজোর বয়স প্রায় ৩৫০ বছর হতে চলল৷

- Advertisement -

দেবী চণ্ডীর অষ্টধাতুর মূর্তি সতীঘাটা থেকে প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে রাজবাড়িতে এনে প্রতিষ্ঠা করেন রাজা রামচন্দ্র৷ সেদিন থেকেই রাজবাড়িতে শুরু হয় দেবীর নিত্যপুজো৷ পরবর্তীতে ফের দেবীর স্বপ্নাদেশ পান রাজা৷ আদেশ অনুযায়ী সতীঘাটায় দেবীর আরেকটি মন্দির নির্মাণ করেন তিনি৷ তবে প্রথমে সেখানে মাটির ঘর ও খড়ের ছাউনি দিয়েই মন্দির তৈরি করা হয়৷ পরে রাজবংশের অন্যতম রাজা শরৎচন্দ্র রায়চৌধুরির নির্দেশে তৎকালীন ম্যানেজার সতীরঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ের তত্ত্বাবধানে সেখানে পাকা দুর্গাদালান নির্মিত হয়৷ ততদিনে জায়গাটির নাম পরিবর্তিত হয়ে পাহাড়পুর হয়েছে৷

এখনও সেখানে রয়েছে সেই দুর্গাদালান৷ প্রতি বছর এখানেই রাজবাড়ির দুর্গাপুজো অনুষ্ঠিত হয়৷ পাকা মন্দির নির্মাণের পর রাজা শরৎচন্দ্র দুর্গাপুজোর জন্য সেই সময় সাত হাজার টাকা বরাদ্দ করেন৷ সেই সময় টাকার অংকটি নেহাত কম নয়৷ প্রাচীন প্রথা মেনে এখনও সপ্তমী তিথিতে রাজবাড়ি থেকে দুর্গাদালানে নিয়ে আসা হয় অষ্টধাতুর চতুর্ভুজা মা চণ্ডীকে৷ দশমী তিথিতে তিনি ফের রাজবাড়িতে ফিরে যান৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন-ভগবান যা করেন মঙ্গলের জন্যই, নদী ভাঙনের পরও খামতি নেই মায়ের পুজোয়

যদিও সময় বয়ে গিয়েছে অনেকটাই৷ এখন সেই রাজা নেই, রাজ্যপাটও নেই৷ চাঁচল রাজবাড়িতেই এখন স্থাপিত হয়েছে কলেজ, মহকুমা প্রশাসনিক ভবন, আদালত সহ একাধিক সরকারি দফতর৷ তবে রাজবাড়ির একাংশে থাকা ঠাকুরবাড়ি এখনও আগের মতোই রয়ে গিয়েছে৷ বর্তমানে চাঁচলরাজ ট্রাস্টি বোর্ড রাজবাড়ির ঠাকুরবাড়ি এবং রাজাদের প্রবর্তিত বিভিন্ন পুজো, মন্দির সংস্কার ইত্যাদি দেখাশোনা করে৷ এপ্রসঙ্গে ট্রাস্টি বোর্ডের সুপারভাইজার পিনাকীজয় ভট্টাচার্য জানালেন, এই পুজো অন্তত ৩০০ বছর পেরিয়ে গেল৷ ওই জায়গায় মহানন্দার তীরে এই রাজ পরিবারের একজন সতী হয়েছিলেন৷ তখন থেকেই জায়গাটি সতীঘাটা নামে পরিচিত৷ মা চণ্ডীর স্বপ্নাদেশে মহারাজ রামচন্দ্র রায়চৌধুরি নদী থেকে অষ্টধাতুর চণ্ডী বিগ্রহ পান৷ তখন থেকেই পাহাড়পুরে দুর্গাপুজো শুরু হয়৷

তার কথায়, পরবর্তীতে ঈশ্বরচন্দ্র রায়চৌধুরি, শরৎচন্দ্র রায়চৌধুরি এখানে রাজত্ব করেন৷ পরবর্তীতে শরৎচন্দ্র রায়চৌধুরির রাজত্ব ভাগ বাটোয়ারা হয়ে যায়৷ কলকাতা হাইকোর্টের আদেশে শরৎচন্দ্রের রাজত্বের অংশ আসে রাজ্য সরকারের অফিসিয়াল ট্রাস্টির মালিকানায়৷ এই ট্রাস্টি বোর্ডের একটি লোকাল ম্যানেজিং কমিটিও রয়েছে৷ এই কমিটি রাজত্বের আয়ব্যয়ের হিসাব সরকারকে পাঠায়৷ তার ভিত্তিতে এখানে একটি বাজেট পাঠানো হয়৷ সেই বাজেট মেনেই এখন রাজ পরিবারের সমস্ত খরচ বহন করা হয়৷

জানা গিয়েছে, বাজেটে রাজত্বের সমস্ত ব্যয়ের জন্য বছরে দুই লক্ষ ২৫ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে৷ এর মধ্যে রয়েছে রাজাদের প্রতিষ্ঠিত বিভিন্ন পুজো, রাজবাড়ির রক্ষণাবেক্ষণ, ঠাকুরবাড়ির নিত্যপুজো প্রভৃতি৷ বাজেট অনুযায়ী ২০১৩ সাল থেকে পাহাড়পুর দুর্গাপুজোর জন্য নয় হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে৷

তিনি জানান, তবে এই বাজারে এত কম টাকায় পুজো সম্ভব নয়৷ গ্রামবাসীরা আমাদের অনুমতি নিয়ে ওই পুজোয় অর্থ সাহায্য করে৷ এই পুজোর বৈশিষ্ট্য, কৃষ্ণা নবমী তিথি থেকে দুর্গাদালানে কল্পারম্ভ হয়৷ এবার মলমাসের জন্য একমাস আগেই সেই পুজো শুরু হয়েছে৷ সপ্তমীর দিন মিছিল সহকারে ঠাকুরবাড়ি থেকে দুর্গাদালানে পুজো নিতে যান৷ অষ্টমীতে কুমারীপুজো প্রথম থেকেই হয়ে আসছে৷ দশমীর পুজো শেষে পাহাড়পুর থেকে ঠাকুরবাড়ি চলে আসেন সিংহবাহিনী৷ সেখানেই তাঁর ভোগ রান্না হয়৷

তিনি আরও বলেন, “একসময় সতীঘাটার মহানন্দার পশ্চিমপাড়ে মহামারী দেখা দিয়েছিল৷ তখন দেবী সেখানকার মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষকে স্বপ্নাদেশ দিয়েছিলেন, গোধূলি লগ্নে বিসর্জনের সময় তারা যেন মাকে আলো হাতে পথ দেখায়৷ তখন থেকেই প্রতি বছর বিসর্জনের সেখানকার মুসলমানরা হাতে লণ্ঠন, মোমবাতি, এখন মোবাইলের আলো জ্বালিয়ে মাকে পথ দেখায়৷ আমিও গত ৫০ বছর ধরে সেই প্রথা দেখে আসছি৷”

এবিষয়ে পাহাড়পুর দুর্গাদালানের পুরোহিত অচিন্ত্যকুমার মিশ্র বলেন, “৩৫০ বছর আগে এই পুজো শুরু হয়েছে৷ তৎকালীন রাজমাতা স্বপ্নাদেশে সতীঘাটায় একটি চণ্ডীমূর্তি পেয়েছিলেন৷ ওই মূর্তি রাজবাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়৷ তখন থেকেই পাহাড়পুরে দুর্গাপুজোর প্রবর্তন হয়৷ আগে এখানে একটি কুঁড়েঘর ছিল৷ পরবর্তীতে এখানে দুর্গাদালান তৈরি হয়৷ সপ্তমীতে বহু ভক্তের উপস্থিতিতে মা সিংহবাহিনী এখানে আসেন৷ দশমী পর্যন্ত মা এখানেই থাকেন৷ সেদিন মা ফের রাজবাড়ির ঠাকুরবাড়িতে ফিরে যান৷ পুজোর কয়েকদিন প্রচুর মানুষ এখানে উপস্থিত হয়৷ তবে এবার করোনার জন্য কিছু বিধিনিষেধ থাকবে৷”

আরও পড়ুন-নিম্নচাপের জের: ভারী বর্ষণে জলমগ্ন বাঁকুড়ার একাংশ, আতঙ্কে এলাকাবাসী

এদিকে রাজবাড়ির ঠাকুরবাড়ির নিত্যপূজারি ভোলানাথ পাণ্ডে বলেন, “রাজা রামচন্দ্র রায়চৌধুরির রাজত্বকালে রাজমাতা সতীঘাটায় মহানন্দা নদী থেকে অষ্টধাতুর এই মূর্তি পান৷ যতদূর জানা আছে, প্রথমে সেখানেই একটি কুঁড়ে নির্মাণ করে মূর্তিটি রাখা হয়েছিল৷ পরে মাকে রাজবাড়ির ঠাকুরবাড়িতে নিয়ে আসা হয়৷ প্রতি বছর সপ্তমীতে মাকে পাহাড়পুর দুর্গাদালানে চারদিনের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়৷ আগে হাতিতে চাপিয়ে মাকে নিয়ে যাওয়া হত৷ এখন আমিই মাকে মাথায় চাপিয়ে সেখানে নিয়ে যাই৷ একইভাবে দশমীতে ফের ঠাকুরবাড়িতে নিয়ে আসি৷ এবার করোনার জন্য নিয়ম কিছু বদলানো হয়েছে৷ পাহাড়পুরে করোনা বিধি মেনেই পুজো হবে৷”

- Advertisement -

সপ্তাহের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ

দেওর বৌদির প্রেম প্রকাশ্যে আসতেই ভাইরাল

এন্টারটেনমেন্ট ডেস্ক: পর্দায় যার সঙ্গে বিয়ে হওয়ার কথা তাকে বিয়ে না করে মেজ দেওরের সঙ্গে পালাচ্ছে কনে, আবার বাস্তবে রোমান্টিক মুডে ছোট দেওরের সঙ্গে...

 মিহির দাসের চলে যাওয়াতে ফের শোকাহত রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়

বিনোদন : একের পর এক কাছের মানুষের চলে যাওয়াতে শোকাহত রচনা । সদ্য বাবা কে হারিয়েছেন অভিনেত্রী । বেশ কিছুদিন ছুটি নিয়েছিলেন কাজের জগত...

মোদক পরিবার ছেড়ে রুদ্র নীপা ধারা অন্য পরিবারে

অর্পিতা দাস: মোদক পরিবার ছেড়ে অন্য পরিবারে হাজির রুদ্র নীপা ও ধারা। নতুন পরিবারে কি করছে তারা? মোদক পরিবারের প্রত্যেক সদস্য‌ই দর্শকদের খুব প্রিয় এবং...

বদলে গেল টেসের পরিচয়- সিদ্ধার্থর নতুন চ্যালেঞ্জ

অর্পিতা দাস: প্রথমে ছিল বন্ধু, তারপর হলো বৌদিমনি, এখন আবার বস- ক্রমশই বদলাচ্ছে সিদ্ধার্থর সঙ্গে তোর্সার পরিচয়। তবে এই নতুন বসকে খুশি করাই সিদ্ধার্থর...

খবর এই মুহূর্তে

কয়লা কাণ্ডে ইডির যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলল Calcutta High Court

কলকাতা: কয়লা কাণ্ডে এবার আদালতের তীব্র ভর্ৎসনার মুখে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টর বা ইডি৷ কয়লা কাণ্ডে এখনও একজন সাক্ষীকেও কেন জেরা করা হল...

Madhyamik Exam: অনলাইন নয় অফলাইনেই মাধ্যমিক, জানাল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ

খাস ডেস্ক: প্রতি মুহূর্তে রাজ্যে করোনার দাপট বাড়ছে। সংক্রমণ বাড়ায় ইতিমধ্যেই স্কুল-কলেক পুনরায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে বড় ঘোষণা করল...

ক্যাম্পাস চত্বরেই ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা, নিরাপত্তা নিয়ে ফের প্রশ্নের মুখে JNU

নয়া দিল্লি: দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল। ইতিমধ্যেই দিল্লি পুলিশ এক অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ সূত্রে খবর, গতকাল রাত...

শহরে ফের সক্রিয় মাদককাণ্ড, পুলিশের জালে মহিলা

নিউটাউন: রাজ্যে ফের সক্রিয় মাদককাণ্ড। এবার মাদককাণ্ডে এক মহিলা সহ তিন যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ। পাশাপাশি তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণে মাদক উদ্ধার করে...