একাংশের চোখে পাগলামি, নিখোঁজ মায়ের আদলে গড়া পুতুল দাহ করলেন ছেলেরা

0
65

শিলিগুড়ি: দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে নিখোঁজ মা। অনেক চেষ্টা করেও কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি। ছেলেদের ধারণা মা আর বেঁচে নেই। তাই মায়ের পুতুল তৈরি করে সৎকার করলেন ছেলেরা। যদিও সমাজের চোখে এই ঘটনা পাগলামি বলেই আখ্যা পেয়েছে। শিলিগুড়ির ফাঁসিদেওয়ার রাংঙাপানি স্টেশনপাড়া এলাকার এই ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যেই সমালোচনা শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন: ফের ভাঙন গেরুয়া শিবিরে, জেলা কমিটিতে বিজেপি নেতাদের গণইস্তফা

রাঙাপানি কালারাম জোতের রেলস্টেশন এলাকায় নিজের বাড়িতে তিন ছেলে ও সন্তানের সঙ্গে থাকতেন সাবিত্রী চৌধুরী। স্বামীর মৃত্যুর পর শোকে মানসিক দিক থেকে ভারসাম্য হারাতে শুরু করেন তিনি। এরপর আচমকাই একদিন বাড়ি ছেলে বেরিয়ে পড়েন। অনেক চেষ্টা করেও মায়ের খোঁজ পায়নি তিন ছেলে। ১৫ বছর পেরিয়ে গিয়েছে, এর মাঝে একবারও মায়ের খবর পাওয়া যায়নি। নিখোঁজ হওয়ার সময় মায়ের বয়স ছিল ৭০ বছর। তাই ছেলেদের বিশ্বাস মা আর বেঁচে নেই। এই বিশ্বাস নিয়েই মায়ের আদলে একটি পুতুল গড়ে সনাতন ধর্মের রীতিনীতি মেনে দাহ করা হয়।

আরও পড়ুন: Bombblast in Khejuri: ওড়িশা থেকে NIA এর জালে আরও এক তৃণমূল কর্মী

এই বিষয়টিকে ভালো চোখে নেয়নি সমাজের একাংশ। বিজ্ঞান আন্দোলনের তরফে এই ঘটনার বিরোধিতা করে জানানো হয়েছে, ১২ বছরের বেশি সময় ধরে কোনও ব্যক্তি নিখোঁজ থাকলে আইনি প্রক্রিয়া মেনে মৃত ঘোষণা করা হয়। নিখোঁজ বৃদ্ধার পরিবার সেই নিয়ম মেনেছে কি না তা জানা নেই। এই ধরনের কাজ কার্যত পাগলামি। নিখোঁজ বৃদ্ধার ছেলেরা জানিয়েছেন, অনেক বছর ধরেই মা নিখোঁজ। তাই গ্রামের লোকেদের পরামর্শে এবং পুরোহিতের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ১৩ দিন পর সাবিত্রী চৌধুরির শ্রাদ্ধের কাজও করা হবে।