৯ অগাষ্ট সরকারিভাবে পালনের দাবি শুভেন্দুর

0
26

নিজস্ব সংবাদদাতা, তমলুক: ৯ অগাস্ট ভারত ছাড়ো আন্দোলনে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এসে রাজ্য সরকার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। প্রথমে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তমলুকে শহিদ মাতঙ্গিনীতে পদযাত্রা করেন৷ পরে শহিদ মাতঙ্গিনীতে মাতঙ্গিনী হাজরার বেদীতে মাল্যদান করেন তিনি৷

অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের আয়োজনে শহিদ বেদীতে মাল্যদান করেন প্রাক্তন সেচমন্ত্রী তথা তমলুক সাংগঠনিক জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সৌমেন মহাপাত্র। রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও বিরোধী দলনেতা শ্রদ্ধাঞ্জলিকে ঘিরে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী।

- Advertisement -

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘‘ভারতীয় জনতা পার্টির একটি দেশপ্রেম দল। আজ ৫ হাজারের বেশি রাষ্ট্রবাদী মানুষ জমায়েত হয়েছেন৷ তাই ডিসেম্বর মাসে কার্যত তৃণমূল সরকার কার্যত থাকবে না। দেখতে থাকুন ২০২৪ সালে একসঙ্গে ভোট হবে। তখন সরকারিভাবে ৯ অগাস্ট পালন করা হবে।’’

কর্মসূচি করতে কেন হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তা সবিস্তারে ব্যাখ্যা দেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, ‘‘গত এক মাস আগে তমলুক নগর মণ্ডলের সভাপতি সুকান্ত চৌধুরী তমলুক থানার ও মহকুমা শাসকের কাছে আবেদন জানিয়েছিল। কিন্তু ২০ দিন কেটে গেলেও কোনো উত্তর দেয়নি। বাধ্য হয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে ছিলাম। কারণ একদিন আগে বলবে মহরম এরজন্য অনুমতি দেওয়া যাবে না।’’

তাঁর বক্তব্য, ‘‘আমরা নিজের ধর্মের প্রতি আস্থাশীল। অপর ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল৷ মহরম যারা পালন করেন, তারা পালন করুক৷ তাদের প্রতি শুভেচ্ছা রইল। এই রাজ্যে যারা শাসক দল রয়েছে আয়োজকদের বলতে হয় না। মহরমের জন্য বিরোধীদের আটকায়। উদাহরণ হিসেবে বলেন এক বছর দুর্গা পূজার বিসর্জন মহরমের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বন্ধ করে দিয়েছিলেন৷’’

অন্যদিকে, এদিন শহিদ মাতঙ্গিনীতে মাতঙ্গিনী হাজরা বেদীতে স্মরণ করে প্রাক্তন সেচমন্ত্রী তথা বর্তমান তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সৌমেন মহাপাত্র দাবি করেন, ‘‘আমাদের কোনো আপত্তি নেই। কেন হাইকোর্টে গেলেন বলতে পারবো না।’’ তৃণমূল নেতার বক্তব্যে পাল্টা জবাব দিয়েছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, ‘‘ঠেলায় না পড়লে বিড়াল গাছে ওঠে না। গতবারে আমার সামনে সৌমেন মহাপাত্র কিছু ক্যাডারকে নিয়েছে চোর চোট্টা বলেছিল। এখন গোটা ভারতবর্ষে বলছে চোর চোট্টা ভাইপোর পিসিটা!’’

উল্লেখ্য, ৯ আগস্ট ১৯৪২ সালে ভারত ছাড়ো আন্দোলনের ডাক দিয়েছিলেন মহাত্মা গান্ধী। এই দিনটি স্বাধীনতা সংগ্রামের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। সেই কারণে দল-মত-নির্বিশেষে পালন করে থাকে সমস্ত রাজনৈতিক নেতৃত্বরা। এই সভাতে অপ্রীতিকর ঘটনার এড়াতে তমলুক থানা সহ বিভিন্ন থানা থেকে পুলিশ বাহিনী এসে মোতায়েন করা হয়৷