এসএসসি দুর্নীতিতে অভিযুক্তদের গ্রেফতার সহ একাধিক দাবিতে বিক্ষোভ রাজ্যজুড়ে

0
50

নিজস্ব সংবাদদাতা: এসএসসি দুর্নীতিতে অভিযুক্তদের গ্রেফতার, সিবিআই তদন্তের দাবি সহ প্রার্থীদের নিয়োগ নিয়ে জেলায় জেলায় বিক্ষোভে সামিল হয়েছে প্রার্থীরা৷ যা নিয়ে উত্তাল রাজ্য-রাজনীতি৷ শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর মেয়ের চাকরির খবর প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষোভ ফুঁসছে প্রার্থীরা৷

এসএসসি দুর্নীতিতে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবি সহ একাধিক দাবি-দাওয়া নিয়ে এবার জেলা শিক্ষা দফতরের সামনে বিক্ষোভ দেখান নদিয়া জেলা শিক্ষক-শিক্ষিকা সমিতি সংগঠন। মঙ্গলবার নদিয়া জেলার কৃষ্ণনগরে ডিআই অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখায় তাঁরা।

নদিয়া জেলা শিক্ষক-শিক্ষিকা সমিতি সংগঠনের সম্পাদক প্রমোদ রঞ্জন দাস জানান, এসএসসি-তে যে সমস্ত মন্ত্রীদের নাম জড়িয়েছে তাঁদের অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে। পাশাপাশি চাকরির ক্ষেত্রে যে অনলাইন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে সেটিও বাতিল করতে হবে। শুধু তাই নয় সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ অবিলম্বে দিতে হবে পাশাপাশি মাদ্রাসা পড়ুয়ারা বিভিন্ন বিষয়ে বঞ্চিত হয়ে আসছে। সেই বিষয়েও শিক্ষা দফতরকে নজর দিতে হবে।

অন্যদিকে, সিবিআই তদন্তের দাবি তুলে চাকরি প্রার্থীদের বিক্ষোভ ঘিরে উত্তপ্ত নদিয়ার বর্ণপরিচয় ভবন৷ ঘটনাস্থলে কৃষ্ণনগর কোতোয়ালি থানার পুলিশ। অভিযোগ, ২০১৪ সালে ডিএলএড প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত প্রার্থীরা টেট পরীক্ষায় পাশ করেন। নির্দেশ ছিল ১৬ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ করার। কিন্তু দশ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হলেও দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে বাকি নিয়োগ প্রক্রিয়া। একাধিকবার তারা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন বিভিন্ন দফতরে জানিয়েছেন কিন্তু কোন লাভ হয়নি৷

অবশেষে মঙ্গলবার নদিয়ার কৃষ্ণনগরের বর্ণপরিচয় ভবনে মিছিল করে এসে বিক্ষোভ দেখায় তারা। বর্ণপরিচয়ের গেট অতিক্রান্ত করে তারা অফিসের মধ্যে ঢুকে পড়ে। এরপর এই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। খবর পেয়ে কৃষ্ণনগর কোতোয়ালি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। চাকরি প্রার্থীদের দাবি, পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য তাঁদের সঙ্গে দুর্নীতি করেছেন। একাধিকবার জানিয়েও তিনি কোনও কর্ণপাত করেনি। সেই কারণে অবিলম্বে তারা সিবিআই তদন্তের দাবি জানাচ্ছেন।

অপরদিকে, টেট উত্তীর্ণ অবশিষ্ট ডিএলএড প্রার্থীদের নিয়োগের দাবিতে হাওড়ায় শিক্ষা ভবনের সামনে বিক্ষোভ শিক্ষক পদপ্রার্থীদের। এদিন মিছিল করে শিক্ষা ভবনের সামনে পৌঁছান বিক্ষোভকারীরা। তাঁরা ডিআই’কে ডেপুটেশন দেন। বিক্ষোভকারীদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ২০১৪ সালের প্রাইমারী টেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সকল শিক্ষক পদপ্রার্থীকে অবিলম্বে নিয়োগ করতে হবে।

একই সঙ্গে, ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার চাইনা, নিয়োগ চাই’ দাবি তুলে ফের আন্দোলনে নামলেন ‘প্রাথমিক টেট উত্তীর্ণ বঞ্চিত ডি.এল.এড ঐক্যমঞ্চে’র সদস্যরা। মঙ্গলবার ওই সংগঠনের তরফে বাঁকুড়া জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের কার্যালয় ‘বিদ্যাভবনে’র সামনে ‘নিয়োগের দাবিতে’ বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নিলেন।

বিক্ষোভকারীদের দাবি, ২০১৪ সালে প্রাথমিকে টেট উত্তীর্ণদের একটা অংশ চাকরি পাননি, অথচ স্বদেশ দাস সহ ১২ জন চাকরি পেয়েছেন। এমনকি বি.এড উত্তীর্ণরাও চাকরি পেলেও গাঁটের কড়ি খরচ করে ডি.এল.এড করে, টেট পাশ করেও তাদের চাকরি মেলেনি। এই অবস্থায় মেয়েদের লক্ষ্মীর ভাণ্ডার নয়, নিয়োগ চাই বলেই তারা দাবি তোলেন।