নিখোঁজের ৫২ ঘন্টা পরে প্রতিবেশীর বাড়ি থেকে উদ্ধার শিশুর মৃতদেহ

0
39

বীরভূম : ৫২ ঘন্টা পরে নিখোঁজ শিশুর দেহ উদ্ধার। বিস্কুট কিনতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে যায় ওই শিশু। অবশেষে প্রতিবেশীর বাড়ির ছাদ থেকে উদ্ধার করা হল ওই শিশুর মৃতদেহ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শান্তিনিকেতনের মোলডাঙা গ্রামে। চার বছরের মৃত ওই শিশুর নাম শিবম ঠাকুর।

রবিবার বাড়ির পাশের একটি মুদির দোকান থেকে বিস্কুট কিনতে গিয়েছিল সে। এরপরে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। চারপাশে তার খোঁজ চালানো হয়। সম্ভাব্য সমস্ত জায়গায় খোঁজ করেও তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশ রীতিমতো তল্লাশি চালায়, এমনকি কুকুর এনেও তল্লাশি করা হয়। অবশেষে নিখোঁজের ৫২ ঘন্টা পরে প্রতিবেশীর ছাদ থেকে উদ্ধার করা হল ওই শিশুর দেহ। এরপরেই ওই প্রতিবেশীর বাড়িতে ভাঙচুর চালাতে শুরু করে স্থানীয়রা। ঘটনাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে তৎপর হয় পুলিশ। ওই অভিযুক্ত প্রতিবেশীর বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

- Advertisement -

প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, ওই শিশুর পরিবারের সঙ্গে অভিযুক্তের পরিবারের পুরনো বিবাদ বর্তমান ছিল। শিশুটির পরিবারের সেলুন ছিল। সেখানেই কাজ করত অভিযুক্ত প্রতিবেশী যুবক। গ্রামেরই এক তরুণীর সঙ্গে সম্পর্ক ছিল অভিযুক্তের। সেই সম্পর্ককে কেন্দ্র করে দুই পরিবার বিবাদে জড়িয়ে পড়েছিল। সেই থেকেই পুরনো ক্ষোভ ছিল অভিযুক্তের। আরও জানা গিয়েছে, শিশুটিকে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

তবে পুলিশের বিরুদ্ধেও অভিযোগ তোলা হচ্ছে। নিখোঁজ হওয়ার পরই পরিবারের তরফ থেকে বিষয়টি জানানো হয়েছিল। তাও পুলিশ এতক্ষণ পরে কেন খুঁজে পেল? ৫২ ঘন্তা সময় লাগল এই শিশুকে খুঁজতে? প্রতিবেশীর বাড়িতেই ছিল শিশুটি। তাতেও পুলিশ এত দেরি কেন করল? তবে কি তদন্তে কোনও গাফিলতি ছিল? এই নিয়েই এখন শুরু হয়েছে জোর জল্পনা।