30 C
Kolkata
Thursday, October 28, 2021
Home অফবিট খচ্চরবাহিনী মহামারী: মল্লভূমের এক লৌকিক দুর্গার উপাখ্যান

খচ্চরবাহিনী মহামারী: মল্লভূমের এক লৌকিক দুর্গার উপাখ্যান

হালে আমরা করোনা ভাইরাসের দাপট দেখছি। এই একটি ভাইরাসই সমগ্র মানবজাতিকে এক অতল খাদের সামনে এনে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। কিন্তু আমরা ধারণাও করতে পারি না, মহামারী বিধ্বস্ত বাংলার হাল সেযুগে ঠিক কতটা বেহাল ছিল। বসন্ত, কলেরা, প্লেগ— সব মিলিয়ে এক ভয়াবহ আবহ!

বিশ্বদীপ ব্যানার্জি: ষোড়শ শতকের শেষভাগ কী সপ্তদশ শতকের গোড়ার কথা। বিষ্ণুপুরে তখন বীর হাম্বীরের রাজত্ব। মল্ল রাজবংশের ৪৯ তম রাজা তিনি। আর এক কথায়, রাজার মত রাজা বলতে যা বোঝায়, ঠিক তা-ই। প্রজাদের সুখ-দুঃখের খোঁজ নিতে প্রায়ই মধ্যরাতে দুর্গ পরিদর্শনে বেরিয়ে পড়েন। তা-ও সম্পূর্ণ একাকী।

- Advertisement -

যে সময়ের কথা বলছি, বাংলাদেশে তখন মহামারী ছিল বলতে গেলে নিত্যকার ঘটনা। হালে আমরা করোনা ভাইরাসের দাপট দেখছি। এই একটি ভাইরাসই সমগ্র মানবজাতিকে এক অতল খাদের সামনে এনে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। কিন্তু আমরা ধারণাও করতে পারি না, মহামারী বিধ্বস্ত বাংলার হাল সেযুগে ঠিক কতটা বেহাল ছিল। বসন্ত, কলেরা, প্লেগ— সব মিলিয়ে এক ভয়াবহ আবহ!

এমনই বিষাক্ত সময়ে ঘটে গেল সেই অলৌকিক ঘটনাটি। এক রাতে পরিদর্শনকালে দুর্গের ছাদ থেকে রাজা বীর হাম্বীর দেখেন যে খচ্চরের পিঠে চড়ে এক নারী দুর্গের ভিতর থেকে বাইরের দিকে চলেছে। চারিদিক নিস্তব্ধ, একটি প্রহরীও সে মুহূর্তে জেগে নেই। অগত্যা রাজা নিজেই চিৎকার করে মহিলাকে পরিচয় জানতে চাইলেন।

- Advertisement -

একবার, দুবার— বারবার। নাঃ কোনও লাভ নেই। রমণী নিজ গমনপথে অবিচল, কোনও উত্তর করার প্রয়োজনই বোধ করলেন না। বীর হাম্বীর বারো ভুঁইয়ার এক ভুঁইয়া বলে কথা! তিনি কেমন করে এ অভব্যতা মেনে নেন? চূড়ান্ত ক্রুদ্ধ হয়ে দ্রুত বেশ কয়েকটি তীর নিক্ষেপ করেন ওই রমণীর দিকে‌। কিন্তু আশ্চর্য কান্ড! রাজা দেখতে পেলেন তাঁর নিক্ষিপ্ত একেকটি তীর নারীটির শরীরে গিয়ে লীন হয়ে যাচ্ছে।

এবারে ভয় পেয়ে যান রাজা, তিনি নিজের আরাধ্যা দেবী মৃন্ময়ীকে স্মরণ করেন। তখনই দেখেন খচ্চরসমেত রমণীটি অদৃশ্য হয়েছেন। অতঃপর সেই রাতেই দেবী মৃন্ময়ী দেখা দেন রাজাকে। বলেন, “চিন্তা কোরো না, রাজা। তুমি যাকে দেখেছ, সে আমারই রূপ। এই মল্লভূমকে মহামারীর কবল থেকে রক্ষা করার উদ্দেশ্যে আমি এখানে চিরকাল খচ্চরবাহিনী রূপে বিরাজ করব। বছরে মাত্র একদিন— মহাষ্টমী শেষে মহানবমী তিথির মহানিশায় তুমি বা মল্লবংশের আরও রাজারা আমার এই রূপের আরাধনা করবে।”

আরও পড়ুন: Durga Puja: বেলুড়ের রীতি মেনেই সংকল্প করা হয় মায়ের নামে, সুরক্ষা বিধি মেনেই সেজে উঠেছে রহড়া রামকৃষ্ণ মিশন

- Advertisement -

মহামারীর কবল থেকে মল্লভূমকে রক্ষা করেন দেবী, তাই তাঁর নামই হয়ে গিয়েছে, মহামারী। অন্যদিকে খচ্চরের ওপর অসীন বলে খচ্চরবাহিনীও বলে থাকেন কেউ কেউ। এবং দেবী মৃন্ময়ীর নির্দেশমতো আজও কেবল দুর্গানবমীর অমানিশাতেই পূজিতা হন এই খচ্চরবাহিনী।

আদতে এক লৌকিক দেবী, তাই পুজোর উপাচারেও শাস্ত্রের বিশেষ প্রভাব পরিলক্ষিত হয় না। মহামারী দেবীর পুজোর উপাচার যে পুঁথিতে নির্দেশ করা রয়েছে, তার নাম “বলিঠাকুরানী পুঁথি”। দশভুজা মৃন্ময়ী দেবী শুধু মল্ল রাজবংশ বলে নয়, গোটা বিষ্ণুপুরেরই প্রধান আরাধ্যা। কামান তোপের মাধ্যমে তাঁর পুজো সূচীত না হলে গোটা এলাকায় একটি দুর্গাপুজোও আরম্ভ হওয়ার জো নেই। সেই মৃন্ময়ী দেবীর এক বিশেষ রূপ মহামারী— তাঁর পুজোতে কিছু বিশেষত্ব থাকবে না, হয়?

সর্বোপরি রয়েছে এক রহস্যময় গোপনীয়তা। রাজ-অন্তঃপুরের লক্ষ্মীঘর থেকে মহামারী দেবীর পট অতি সন্তর্পণে নিয়ে যাওয়া হয় মৃন্ময়ীর গর্ভগৃহের পিছন দিকে। সে সময় সেখানে পূজারী দুই ব্রাহ্মণ এবং রাজপরিবারের সদস্য ছাড়া আর কারও প্রবেশ নিষেধ। নিভিয়ে দেওয়া হয় মন্দির প্রাঙ্গণের সমস্ত আলো। শুধুমাত্র একটি প্রদীপ জ্বালিয়ে সম্পন্ন হয় দেবী মহামারীর ঘট এবং পটের পুজো।

আদ্যিকাল থেকে সেই একই পটে হয়ে আসছে পুজো। যার পিছনেও রয়েছে কারণ। মল্লবংশের শেষ রাজা স্বর্গতঃ কালীপদ সিংহ ঠাকুর মহামারী দেবীর সাবেক পটচিত্র সংস্কার করতে চেয়ে দায়িত্ব দিয়েছিলেন ফৌজদার পরিবারকে। কিন্তু এরপরই অতি রহস্যজনকভাবে মৃত্যু ঘটে কেশব ফৌজদার নামক দায়িত্বপ্রাপ্ত শিল্পীর। সেই থেকে দেবীর অভিশাপের একটি কিংবদন্তি জন্ম নিয়েছে। যার ফলে পটচিত্র সংস্কারের চিন্তা করতেও ভয় পান বিষ্ণুপুরের মানুষ।

অগত্যা জীর্ণ পটেই চলে আসছে পুজো। এবং পুরোহিতরা সেই পটের দিকে পিছন ফিরে সে পুজো করে থাকেন। স্থানীয় লোকশ্রুতি অনুযায়ী, পূজাকালে দেবীর দিকে চোখ পড়লে উক্ত পুরোহিত নির্বংশ হন। দেবীকে নিবেদন করা হয় ৫ পোয়া গোবিন্দভোগ চাল, মুগের ডাল এবং দেশী গাওয়া-ঘিয়ের সঙ্গে কাঁচকলা, রাঙাআলু আর সৈন্ধব লবণ দ্বারা প্রস্তুত ভোগ।

এবছরও একইভাবে হওয়ার কথা মহামারী দেবীর পুজো। বিষ্ণুপুরের মানুষের তাই একটাই প্রার্থনা। দ্রুত কোভিডের প্রকোপ থেকে বিশ্বকে মুক্ত করো, মা।

- Advertisement -

সপ্তাহের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ

 ভারত থেকে ইংল্যান্ডগামী বাক্সেই ছিল বিষধর সাপ, চক্ষু চড়কগাছ আধিকারিকদের

খাস খবর ডেস্ক: 'তুমি যে ঘরে, কে তা জানত', বাঘমামা নয়, এবার ভারত থেকে ইংল্যান্ডগামী একটি বাক্সে দেখা মিলল বিষধর সাপের। ইংল্যান্ডে পৌঁছোবার পর...

Central force : অবাধ নির্বাচন করতে বদ্ধ পরিকর কমিশন, চার কেন্দ্রের জন্য বরাদ্দ ৯২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী

কলকাতা: উপ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফের রাজ্যে এল আরও ১২কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ যার জেরে সবমিলিয়ে ভোটের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীর মোট সংখ্যা বেড়ে দাড়াল ৯২...

এখনও থামেনি আক্রমণ,বগুড়ার মন্দিরে রেহাই পেলেন না লক্ষ্মীদেবীও

খাস খবর ডেস্ক: মা দুর্গা, মা কালীর পর এবার ছাড় পেলেন না ধনসম্পদের দেবী শ্রী লক্ষ্মীও। বাংলাদেশের বগুড়া শহরতলিতে কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর দিন ভাঙা হল...

Medical negligence: ভুল চিকিৎসার জেরে মৃত্যু সদ্যোজাত শিশুর, রণক্ষেত্র তমলুক

তমলুক: ভুল চিকিৎসার কারণে মৃত্যু হল সদ্যোজাত শিশুর। শিশুর মৃত্যুকে ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তমলুকে। পাশাপাশি কাঠগড়ার তোলা হল বেসরকারি ডায়াগনিস্টিক...

খবর এই মুহূর্তে

Mahesh Manjrekar: অন্তিমের শুটিং চলাকালীন এই মারণ রোগ থাবা বসিয়েছিল মহেশের শরীরে

মুম্বই: চলতি সপ্তাহের সোমবার অন্তিম: দ্য ফাইনাল ট্রুথ-এর ট্রেলার প্রকাশ করেছেন সলমন খান।মহেশ মঞ্জরেকর পরিচালিত এই ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন আয়ুষ শর্মা এবং মহিমা...

Bar and Restaurant Association: নীতি পুলিশের জুলুম বন্ধ না হলে পথে নেমে আন্দোলন, সরকারকে চরম হুঁশিয়ারি পানশালা সংগঠনের

কলকাতা: ‘‘৭২ ঘণ্টার মধ্যে সরকারি আধিকারিকরা যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় আশ্বাস না দিলে দেড় কোটি লোকের একাংশকে নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়ব৷ প্রয়োজনে চাক্কা জ্যাম করে...

Road construction: রাস্তা নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ, কাজ আটকে বিক্ষোভ এলাকাবাসীর

উত্তর দিনাজপুর: রাস্তার কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠল উত্তর দিনাজপুরে। নিম্নমানের কাজের অভিযোগ তুলে রাস্তার কাজ আটকে বিক্ষোভ এলাকাবাসীর। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর...

Covid 19 : লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ, রাজ্যে এল ৩৯ লক্ষ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন

কলকাতা: একদিকে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ৷ গত ২৪ ঘণ্টা রাজ্যে করোনার বলি হয়েছেন ১৫ জন৷ আক্রান্তের সংখ্যা পাঁচ শতাধিক৷ করোনার দোসর হিসেবে ডেঙ্গুর উপস্থিতি...