আমি নয় আমরা, নিবেদিতার জন্মজয়ন্তীতে বিবেক বার্তা শুভেন্দুর

0
162

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিঘা: কেউ একক শক্তিতে কোন কাজ করতে পারে না। এটি স্বামী বিবেকানন্দ বলে গিয়েছিলেন। তিনি বলে গিয়েছেন, আমি আমি হল সর্বনাশের মূল কারণ, আমরা আমরা যারা করে তারাই টিকে থাকে। বুধবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দিঘাতে ভগিনী নিবেদিতার ১৫৩ তম জন্মজয়ন্তী পালন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে এমনভাবেই স্বামী বিবেকানন্দের বাণী স্মরণ করালেন রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

এদিন মন্ত্রীর হাত ধরে ভগিনী নিবেদিতার একটি মূর্তি উন্মোচন করা হয়। পুষ্পার্ঘ্য নিবেদনের মাধ্যমে ভগিনী নিবেদিতার জন্মদিনের শ্রদ্ধা জানান শুভেন্দু অধিকারী। বুধবার ছিল ভগিনী নিবেদিতার ১৫৩ তম জন্ম জয়ন্তী। গোটা রাজ্যের পাশাপাশি পূর্ব মেদিনীপুর জেলাতেও পালন করা হয় জন্মদিন। এদিন সকালে দিঘার বটতলা উম‍্যান ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের তরফ থেকে ভগিনী নিবেদিতার জন্মদিন উদযাপনের আয়োজন করা হয়।

যেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ছাড়াও বিশিষ্টজনেরা। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, “আমি উম‍্যান ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের পুরো টিমকে অভিনন্দন জানাই। পুরো টিমকে এই কারণে, একক শক্তিতে কেউ কোনদিন কোন কাজ করতে পারে না। স্বামী বিবেকানন্দ বলে গিয়েছেন আমি আমি হল সর্বনাশের মূল, আমরা আমরা যারা করে তারাই টিকে থাকে। তাই এই সংঘের সমস্ত মায়েদের আমার প্রণাম।”

এদিনের মঞ্চ থেকে শুভেন্দু অধিকারী এলাকার প্রশাসনিক কর্তাব্যক্তি সহ সাধারণ মানুষকে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানান। শুভেন্দু বাবু আরও বলেন, “আজকে প্রতি একশো বছর অন্তর অন্তর একটা করে মহামারী হয়। একশো বছর আগে এই রকম দুর্গাপুজোর সময় স্প্যানিশ ফ্লু হয়েছিল। ঠিক তারও আগে প্লেগ হয়েছিল কলকাতাতে। সেই সময় কলকাতার অর্থশালী জমিদার লোকজনেরা তারা কলকাতা ছেড়ে বাইরে বাইরে চলে গিয়েছিলেন। সেবা করার কোন লোক ছিল না।’’

মন্ত্রীর কথায়, ‘‘ভগিনী নিবেদিতা নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্লেগ রোগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে সেবা করেছেন। তাই স্বামী বিবেকানন্দ তাঁর নাম দিয়েছিলেন সিস্টার নিবেদিতা। কলকাতাতে নারী শিক্ষার প্রসারে আমরা যদি বিদ্যাসাগরের নাম বলি। এর ঠিক পরে নারী বিদ্যালয় স্থাপন করে শিক্ষার করে শিক্ষার প্রসারে চূড়ান্ত শিখরে পৌঁছে যাওয়ার জন্য যিনি কাজ করেছিলেন তিনি হলেন সিস্টার নিবেদিতা।”