অধরা নাবালিকা, অপহরণের সহযোগিতা করার অভিযোগে গ্রেফতার অপহরণকারীর বাবা

0
51

মারিশদা: ছেলের অপকর্মের শাস্তি পেল দুই হতভাগ্য পিতা। নাবালিকা অপহরণের করার অভিযোগে অপহরণকারী যুবকের বাবা ও তার বন্ধুর বাবাকে গ্রেফতার করল পুলিশ। যদিও অপহরণকারী যুবক ও তার বন্ধুকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পাশাপাশি তিন দিন কেটে গেলেও নিখোঁজ রয়েছে নাবালিকা। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মারিশদা থানার পিঠুলিয়া এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, অপহরণকারী যুবকের বাবা ঘনশ্যাম মণ্ডল ও তার বন্ধুর বাবা সুকান্ত মণ্ডল। দু’জনের বাড়ি মারিশদা থানার দক্ষিণ পিঠুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা। বুধবার অভিযুক্তদের কাঁথি মহকুমা আদালতে তোলা হয়। বিচারক তাদের জামিন নাকচ করে দেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মারিশদা থানার পুলিশ। ঘটনা জানাজানি হতেই এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

আরও পড়ুন-ভয়াবহ দুর্ঘটনা, কারখানার দেওয়াল ধসে পড়ে মৃত্যু ১২ জন শ্রমিকের

সূত্রের খবর, সাম্প্রতিক কয়েকদিন আগে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মারিশদা থানার পিঠুলিয়া গ্রামের এক নাবালিকার রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়। ওই নাবালিকাকে অপহরণের অভিযোগ উঠে ঘনশ্যাম মণ্ডলের ছেলের বিরুদ্ধে। সেই কাজে পুরো সহযোগিতা করে তার বন্ধু সহ তার পরিবারের সদস্যরা বলে অভিযোগ। দীর্ঘ খোঁজাখুঁজি করার পর নাবালিকার কোথাও সন্ধান পাননি তার পরিবারের সদস্যরা।

এরপর মারিশদা থানার পুলিশের দ্বারস্থ হয় নাবালিকা পরিবারের সদস্যরা। গত ১৪ মে মারিশদা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নাবালিকার বাবা। পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে নাবালিকাকে অপহরণের সহযোগিতা করেছে দুই পরিবারের সদস্যরা। নাবালিকাকে উদ্ধার করতে পুলিশ তদন্তে নেমেই মঙ্গলবার রাতে অপহরণের ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মারিশদা থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন-এবিভিপির অভিযানকে ঘিরে ধুন্ধুমার বিকাশ ভবন, চলল জল কামানও

মারিশদা থানার ওসি রাজু কুণ্ডু বলেন, “অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমে নাবালিকা অপহরণের সহযোগিতা করার অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুরো ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। খুব দ্রুত না বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হবে। অপহরণকারী যুবকের খোঁজে তল্লাশি শুরু করা হয়েছে।”