লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে ডেঙ্গুর সংক্রমণ, সঙ্গী আতঙ্কও

0
34
dengu

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: দুয়ারে দুর্গা পুজো। এমন আবহে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে ডেঙ্গুর (Dengue) সংক্রমণ। যার জেরে আতঙ্কের পারদ আরও চড়েছে বাঁকুড়া পুর এলাকায়৷ সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, পুর এলাকায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১২৩ জন৷ যার মধ্যে ১৯ নম্বর ওয়ার্ডেই রয়েছেন ৯৮জন আক্রান্ত। এর মধ্যে ৮ জনকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ পরিস্থিতির গুরুত্ব বিচার করে এদিন ১৯ নম্বর ওয়ার্ড পরিদর্শনে যান বাঁকুড়া সদরের মহকুমা শাসক সুশান্ত কুমার ভক্ত। স্থানীয় মানুষজন তাঁর কাছে নিজেদের আতঙ্কের কথা প্রকাশ করেন৷ একই সঙ্গে পুরসভার নিকাশি সহ হাজারও গাফিলতি নিয়ে সরব হন৷

সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়ে মহকুমা শাসক সুশান্ত কুমার ভক্তের দাবি, ‘‘কয়েকটি ওয়ার্ডে ডেঙ্গুর সংক্রমণ অত্যধিক বৃদ্ধি পেয়েছে৷ খবর পেয়ে স্বাস্থ্য কর্তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন৷ ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতার উপর বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে৷ পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে।’’ স্থানীয় কাউন্সিলর আজিজুর রহমান বলেন, মূলত সচেতনতার অভাবেই ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে৷ পুর ও স্বাস্থ্য কর্মীরা বাড়ি বাড়ি সচেতনতা তৈরির কাজ করছেন।

- Advertisement -

যদিও পরিস্থিতির জন্য পুরসভা এবং স্বাস্থ্য কর্তাদের দুষছেন বাসিন্দারা৷ তাঁদের অভিযোগ, নিকাশি ব্যবস্থা অত্যন্ত ভঙ্গুর৷ নর্দমা নিয়মিত পরিস্কার হয় না। ফলে জল জমে থাকে। সম্প্রতি মশার দাপট অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে৷ ঘরে-বাইরে কোথাও টেকা যাচ্ছে না৷ পুরসভার কাউন্সিলরকে বলেও কোনও সুরাহা হয়নি৷ তারই জেরে এমন পরিস্থিতি৷

বস্তুত, হাতে মাত্র তিনদিন৷ তারপরই মহালয়া৷ দুয়ারে কড়া নাড়ছে শারদোৎসব৷ বিগত দু’বছর করোনার দাপটে সেই অর্থে পুজোর উৎসবে ‘শিকল’ দিতে বাধ্য হয়েছিল আমুদে বাঙালি৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে করোনার বিদায় বার্তা শোনানোর পর থেকেই উৎসবে মেতে ওঠার আনন্দে একটু একটু করে তৈরি হচ্ছিলেন আম আদমি৷ কিন্তু নতুন করে ডেঙ্গুর (Dengue) উৎপাতে মন ভাল নেই বাঁকুড়ার। কারণ, করোনার শূন্যস্থান পূরণে তৎপর হয়ে উঠেছে ডেঙ্গু৷

আরও পড়ুন: রাজ্যের আর্জি খারিজ, ডিএ মামলায় কর্মচারিদের পাশে হাইকোর্ট

downloads: https://play.google.com/store/apps/details?id=app.aartsspl.khaskhobor