শিশুদের অপুষ্টি: Mid day meal এর মান নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

0
37

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: শিশুদের অপুষ্টি দূর করতে বুধবার থেকে সারা রাজ্যে ১২ হাজার ২৩২ টি ‘শিশু আলয়’ পথ চলা শুরু করল৷ আর সেই অনুষ্ঠান থেকেই মিড ডে মিলের মান নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন তুলে দিলেন কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ডাঃ সুভাষ সরকার।

আরও পড়ুন-SSC নিয়োগে মামলা, তিন সপ্তাহের স্থগিতাদেশ ডিভিশন বেঞ্চের

এদিন বাঁকুড়ার সোনামুখীর রপটগঞ্জ অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র থেকে একযোগে ওই সব ‘শিশু আলয়’ কেন্দ্রের উদ্বোধন ও ‘অপারেশান পুষ্টি’ কর্মসূচির সূচনা করেন রাজ্যের নারী, শিশু বিকাশ, সমাজ কল্যাণ এবং স্বনির্ভর গোষ্ঠী ও স্বনিযুক্তি দপ্তরের মন্ত্রী শশী পাঁজা। ওই অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ডাঃ সুভাষ সরকার। সেখানেই তিনি বলেন, ‘‘অপুষ্ট শিশুর সংখ্যা বৃদ্ধির বিষয়টি যথেষ্ট চিন্তার বিষয়৷’’

খানিক থেমে এরপরই বোমা ফাটান কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী৷ দাবি করেন, ‘‘এই ঘটনার পিছনে মিড ডে মিলের পরিবেশন ব্যবস্থা নিশ্চয়ই সঠিক ছিল না। সর্বশিক্ষা ও মিড ডে মিল খাতে কেন্দ্রীয় সরকার বরাদ্দের বাইরে অনেক সময় বেশি অর্থ দিয়েছে। কিন্তু তা যথাযথ ব্যয় হচ্ছে কি না সেটা দেখা দরকার৷’’ এবিষয়ে প্রশাসনের পাশাপাশি স্থানীয় মানুষ ও অভিভাবকদের খোঁজ খবর রাখার পরামর্শ দেন তিনি৷

যদিও উদ্বোধনী অনুষ্ঠান থেকে মন্ত্রী শশী পাঁজা দাবি করেন, কোভিড আবহ ও দীর্ঘ লক ডাউনের কারণে অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলি বন্ধ ছিল। তার মধ্যেও রান্না করা খাবার বন্ধ থাকলেও আলু, চাল আর ডাল নিয়মিত সরবরাহ করা হয়েছে। তার মধ্যেও অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের কর্মী-সহায়িকারা শিশুদের ওজন করে অপুষ্টির তথ্য পেয়েছেন। তাই অপুষ্ট শিশুদের চিহ্নিতকরণ শেষে তাদের প্রয়োজনীয় পুষ্টির যোগান দিতে রাজ্য সরকার বিশেষ উদ্যোগী হয়েছে৷

আরও পড়ুন-Farm Laws: কৃষকদের জয়, তিন কৃষি বিল প্রত্যাহারে অনুমোদন দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা

প্রশাসন সূত্রে খবর, অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলিকে নানান উপকরণের মাধ্যমে নতুন করে সাজিয়ে শিশুদের উপযোগী করে ‘শিশু আলয়ে’ রুপান্তরিত করা হচ্ছে। উদ্দেশ্য, শিশুদের অপুষ্টির হাত থেকে রক্ষা করা৷