পুরভোট শেষ, চেয়ারম্যান পদে ‘বহিরাগত’ ইস্যুতে বিতর্ক বাড়ছে এই জেলায়

0
26

বাঁকুড়া: পুরভোট পর্ব শেষ হতেই মল্ল রাজাদের রাজধানী বিষ্ণুপুরে নয়া বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিষ্ণুপুরে চেয়ারম্যান পদে ‘বহিরাগত’-এর নামে পোস্টার ঘিরে শুরু হয়েছে নানা জলঘোলা। এই কারণে পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হচ্ছে বাঁকুড়ায়।

সারাদিনের সমস্ত খবরের আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন খাস খবর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ: https://play.google.com/store/apps/details?id=app.aartsspl.khaskhobor

জানা গিয়েছে, বিষ্ণুপুর পুরসভার ১৯ টি ওয়ার্ডের ১৩ টিতেই জয়ী হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই পুরসভার ১৩ নং ওয়ার্ড থেকে জয়ী হয়েছেন প্রাক্তন পুর প্রশাসক অর্চিতা বিদ। দীর্ঘদিন ধরেই শাসক দলের অন্যতম মুখ হিসেবে গণ্য হয়ে আসছেন অর্চিতা পুরভোটের আগেই ১৩ নং ওয়ার্ডের পুর এলাকার ভোটের তালিকায় নাম তোলেন। তিনি আবার চেয়ারম্যান পদের অন্যতম দাবিদার এবং বাকি সবাইকেই পিছনে ফেলে দিয়েছেন। ফলে দলের অন্দরেই নেত্রীর প্রতি ক্ষোভ বাড়ছে।

বিস্তারিত খবর, লাইভ ভিডিও সহ সমস্ত রকম আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ: https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

বিষ্ণুপুরে “বিষ্ণুপুরে বহিরাগত চেয়ারম্যান চাইনা” লেখা পোস্টার পড়েছে। ক্ষোভের মাঝে এই পোস্টার অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। তৃণমূলের এই ঘটনায় মন্তব্য করতে ছাড়েননি গেরুয়া শিবির। বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি নীরজ কুমার বলেন, ‘অর্চিতা বিদ নিঃসন্দেহে বহিরাগত।’ তিনি প্রশাসন ও পুলিশের ভূমিকা নিয়ে অভিযোগ তুলে বলেছেন, ‘বিষ্ণুপুরে প্রশাসন ও পুলিশ একসঙ্গে হাত মিলিয়ে তৃণমূলকে জিতিয়েছে। শাসক দল টাকা চুরি করতে এইসব নোংরা খেলায় নেমেছে। বিজেপি নেতার মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিয়ে তৃণমূলের বিষ্ণুপুর টাউন সভাপতি সুনীল দাস বলেন, ‘গোটা রাজ্যে তৃণমূল এককভাবে ক্ষমতায় রয়েছে। কয়েকজন মানুষ নিজের স্বার্থে চক্রান্ত করে চলেছে।’

আরও পড়ুন: Russia-Ukraine Crisis: সুমিতে আটক পড়ুয়াদের দেশে ফেরাচ্ছে সরকার