সিঁদুর খেলা, ধুনুচি নাচ নয়, দশমীর দিন কাদা মাখে গোটা গ্রাম

0
20
mud play

বাঁকুড়াঃ আজ বিজয়া দশমী। মণ্ডপে মণ্ডপে চলছে সিঁদুর খেলা। পরস্পরকে সিঁদুর দিয়ে রাঙিয়ে বিষাদঘন মুহূর্ত হয়ে উঠছে কিছুটা আনন্দময়। কিছুটা অন্যরকমভাবে বিজয়া দশমী (dashami) পালন করে  বাঁকুড়ার (bankura) জয়পুরের বৈতল গ্রাম। প্রতি বছর দশমীর দিন রীতি মেনে চলে কাদা খেলা (mud play)। চলতি বছরেও তার অন্যথা হয়নি।

মন্দিরের সামনে তৈরি করা হয় পুকুর। এলাকার ৭ টি পুকুর থেকে জল এনে পূর্ণ করা হয় সেই পুকুর। এরপর শুরু হয় কাদা খেলা। আট থেকে আশি নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলেই অংশ নেয় ব্যতিক্রমী এই আনন্দ উৎসবে।

- Advertisement -

কাদা খেলা (mud play) নিয়ে এলাকায় প্রচলিত রয়েছে একটি জনশ্রুতি। জানা যায় বিষ্ণুপুরের রাজপরিবারের একটা অংশ বর্ধমানের রাজা কিনে নিয়ে ছিলেন। এই নিয়ে দুই রাজ পরিবারের মধ্যে শুরু হয় মামলা। সেই সূত্রে বিষ্ণুপুর রাজা দ্বিতীয় রঘুনাথ সিংহ রওনা দেন  বর্ধমানে। যাওয়ার পথে পড়ে ঝগড়াই চণ্ডী মন্দির। রাজা মন্দিরে প্রণাম সেরে বেরিয়ে দেখেন সামনের বিশাল বটের নীচে একটি ছোট্ট মেয়ে একা কাদামাটি নিয়ে খেলা করছে। তার সারা গায়ে কাদাজল।  রাজাকে দেখেই ছোট্ট মেয়েটি বলে ওঠে, ‘আয় খেলবি আয়।’  রাজা বলেন, ‘সময় নেই। অনেক কাজ, বর্ধমান যেতে হবে মামলা লড়তে।’ রাজার কথা শুনে মেয়েটি বলে ওঠে, ‘’মোটে চিন্তা করিস না,  জিতে যাবি।‘’ রাজা তখন মেয়েটিকে কথা দেন, জিতে গেলে ফেরার পথে খেলা করব। রাজা সেই মামলায় জেতেন এবং ফেরার সময় সেপাই-মন্ত্রী নিয়ে কাদা খেলেন মন্দির চত্বরে। আর সেই থেকে প্রতিবছর বিজয়ার দিন অনুষ্ঠিত হয় কাদা খেলা।