Bankura: দলছুট হাতির আক্রমণে মৃত্যু বৃদ্ধার, চাঞ্চল্য এলাকায় 

0
22

বাঁকুড়া: দলছুট হাতির আক্রমণে মৃত্যু হল এক বৃদ্ধ মহিলার। এই ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল বাঁকুড়ায় সোনামুখী থানা এলাকায়। মৃতার নাম ৫৬ বছর বয়সী লক্ষী সরেন।

আরও পড়ুন-শিশু পাচার কাণ্ডে বিস্ফোরক অগ্নিমিত্রা পল: প্রশ্ন তুললেন বাংলার নারী সুরক্ষা নিয়ে

স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই মহিলা জঙ্গলের পাশে একটি জমিতে ধান কাটার কাজ করছিলেন। সেইসময় দলছুট দু’টি হাতিকে বেরিয়ে আসে। সেই সময় মাঠে ধান কাটার সঙ্গে যুক্ত অন্যান্যরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। কিন্তু ওই বৃদ্ধা তা না পারায় একটি হাতি শুঁড়ে পেচিয়ে মাটিতে আছাড় মারলে তিনি গুরুতর আহত হন।

এরপর এই ঘটনার খবর পেয়ে তড়িঘড়ি করে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় সোনামুখী বন দফতরের কর্মী আধিকারিকরা ও সোনামুখী থানার পুলিশ। স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় পুলিশ আহত ওই বৃদ্ধা মহিলাকে উদ্ধার করে সোনামুখী গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়।

তবে এই ঘটনায় বন দফতরের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। দীর্ঘ কয়েক সপ্তাহ ধরে সোনামুখী জঙ্গলে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে হাতির দল ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে স্থানীয় কৃষকদের। তার ওপর রবিবার হাতির আক্রমণে মৃত্যুর ঘটনা রীতিমতো সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হচ্ছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ জনতা বিষ্ণুপুর-সোনামুখী পথ অবরোধ করেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা মঙ্গল সরেন বলেন, “রাত হলেই আমাদের হাতির আতঙ্ক গ্রাস করছে। প্রশাসনের কাছে আমাদের একটাই আবেদন হাতিগুলোকে দ্রুত অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করুক। আর তা না হলে তাঁদের বেঁচে থাকা অসম্ভব।”

আরও পড়ুন-Protest: ফের শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মীদের বিক্ষোভ J D Birla -তে

এ বিষয়ে সোনামুখী রেঞ্জ অফিসার দয়াল চক্রবর্তী বলেন, “অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। তবে সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ আমরা তার স্বামীর হাতে তুলে দেব। হাতি গুলিকে দ্রুত অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সব রকম প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে।”