আইন মেনে তল্লাশি চালানো হয়নি আনিস খানের বাড়িতে, সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

0
44

কলকাতা: ছাত্রনেতা আনিস খান রহস্যমৃত্যু মামলায় নয়া মোড়। ফেব্রুয়ারি মাসের শেষে খুন হয়েছিলেন আনিস খান। আঙুল উঠেছিল রাজ্যের প্রশাসনের দিকে। পরিবারের তরফে সিবিআই তদন্তের দাবি করা হলেও দেওয়া হয়নি সিবিআই তদন্ত। রাজ্য সরকারেই আস্থা রাখা হয়েছিল তদন্তের জন্য। আর এবার সামনে এল আরেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। আইন মেনে তল্লাশি চালানো হয়নি আনিস খানের বাড়িতে। হাই কোর্টে রাজ্যের তরফে এমনটাই জানালেন অ্যাডভোকেট জেনারেল।

আরও পড়ুনঃ Pallavi Dey: অভিনেত্রী পল্লবীর মৃত্যুতে সমাজকে কাঠগড়ায় তুললেন বাবুল সুপ্রিয়

মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টে আমতার ছাত্রনেতা আনিস খানের মৃত্যু মামলার শুনানি ছিল। সেখানে রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল বলেন, ‘আমরা অভিযুক্ত পুলিশের পক্ষে সওয়াল করছি না। আত্মহত্যা হয়েছে, এ কথাও কেউ বলছে না। এটা দুর্ঘটনাজনিত হত্যা। কিন্তু, যেহেতু এখানে কোনও সাক্ষী নেই, এটাই সবচেয়ে বড় সমস্যা। তাঁর কথায়, আনিসের বিরুদ্ধে পকসো ধারায় একটি মামলা ছিল। হিজাব সংক্রান্ত পোস্ট নিয়েও একটি জটিলতা ছিল। ঘটনার দিন আনিসকে গ্রেফতার করতে গিয়েছিল পুলিশ। সম্ভবত সেই সময় পালানোর চেষ্টা করেন আনিস।

এদিন রাজ্যের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আনিস খানের ফোন হায়দরাবাদের ফরেনসিক ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। সেখানে আইনজীবীর সঙ্গে কথোপকথনও মিলেছে। এক আইনজীবী বলছেন, ‘তুমি এবার অ্যারেস্ট হবে।’ আনিস খানের মামলায় এখন কোন পর্যায়ে তদন্ত হচ্ছে সে বিষয়ে চিন্তায় কলকাতা হাইকোর্ট। এদিন এমনটাই জানিয়েছেন বিচারপতি। অন্যদিকে, CFSL- এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ছাত্রনেতা আনিস খান আত্মহত্যা করেননি। হয় কেউ তাঁকে ঠেলে ফেলে দিয়েছে নয়ত তিনি কোনও ভাবে তিনি নিজে পড়ে গিয়েছেন। যেভাবেই হোক ছাদ থেকে পড়ে গিয়েই যে তাঁর মৃত্যু হয়েছে সেটা ফরেন্সিক রিপোর্টে স্পষ্ট।

পাশাপাশি, এদিন আদালতে পলিগ্রাফ টেস্টের প্রয়োজনীয়তার কথাও উল্লেখ করা হয়। ওই ঘটনার কোনও প্রত্যক্ষদর্শী না থাকার জন্য টেকনিক্যাল সাপোর্ট নিতে হবে বলেও এদিন সওয়াল করেন সরকার পক্ষের আইনজীবী। এই মামলার পরবর্তী শুনানি রয়েছে আগামী ৭ জুন।