ভূতুড়ে কাণ্ড, রাজ্যে উধাও ৭ হাজার সরকারি প্রাথমিক স্কুল

0
30

খাস খবর ডেস্ক: একদিকে যেমন স্কুল ছুটদের সংখ্যা বাড়ছে, অন্যদিকে, অবলুপ্ত করা হচ্ছে শিক্ষক-শিক্ষাকর্মীদের। পড়ুয়া-শিক্ষকদের অভাবে রাজ্যে গত দশ বছরে কমেছে সরকারি প্রাথমিক স্কুলের সংখ্যা। একটি-দুটি নয়, একেবারে ৭০১৮টি স্কুল উধাও হয়ে গিয়েছে রাজ্য থেকে। এমনটাই জানা গিয়েছে রাজ্যের শিক্ষা দফতরের তরফে। যে দফতর প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে সোচ্চার রাজ্য, সেই দফতরই মিড ডে মিলের পরিকল্পনা জানাতে গিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ এক যাত্রাতেই দুই দেশ সফর, এসে বললেন আবুধাবিতে পাওয়া বিশেষ জিনিসের কথা

রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর সুত্রে জানা গিয়েছে, ২০১২-র মার্চে রাজ্যে ৭৪,৭১৭টি প্রাথমিক স্কুল ছিল। ২০২২-র মার্চে সেই সংখ্যাটা কমে হয় ৬৭,৬৯৯টি। উধাও হয়ে গিয়েছে ৭০১৮টি স্কুল। জেলাওয়াড়ি পরিসংখ্যানও আছে সরকারের ঘরে। তাতে দেখা যাচ্ছে, গত দশ বছরে প্রাথমিক স্কুল বেড়েছে পুরুলিয়ায়। সেখানে স্কুল ছিল ৩৪৯০টি। ১ টি স্কুল বেড়ে হয়েছে ৩৪৯১টি। এছাড়া শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদ এলাকায় ৮৩টি প্রাথমিক স্কুল বেড়েছে বলে বলে দাবি রাজ্যের। বাকি সমস্ত জেলাতেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা কমেছে।

আরও পড়ুনঃ টানা ১০ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে শিয়ালদহ শাখার ট্রেন চলাচল, ভোগান্তি নিত্য-যাত্রীদের

সবচেয়ে বেশি কমেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। সেখানে কমেছে ১১৮২টি প্রাথমিক স্কুল। পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম মিলে কমেছে ১০৪৭টি। পূর্ব মেদিনীপুরে ৮৬৭টি। এই ভাবে প্রতি জেলায় স্কুলের সংখ্যা কমেছে। অন্যদিকে, প্রাথমিক স্কুলে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যাও সেই হারে কমছে। ২০১২তে ছিল ৭৮.০৪.৬৮৪। এখন কমে হয়েছে ৭১,৯৫,৭২৮। অভিযোগ,  যে স্কুলগুলো বন্ধ হচ্ছে, তাঁর শিক্ষক, শিক্ষাকর্মী পদও অবলুপ্ত করা হচ্ছে।