কাতারের স্টেডিয়ামে তীব্র জল সঙ্কট, প্রবল চাপে ফিফা 

0
21
what-are-the-housing-authorities-thinking-about-the-1-million-spectators-at-world-cup-in-qatar

শান্তি রায় চৌধুরী: বিশ্বকাপ ফুটবল যত এগিয়ে আসছে তত একটা না একটা সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে কাতার। এখন কাতারে স্টেডিয়াম গুলোতে দেখা দিয়েছে তীব্র জল সংকট। এরপরই প্রশ্ন উঠছে তাহলে কাতার কি প্রস্তুত নয়? এই প্রথম মধ্য প্রাচ্যের কোনো দেশ আয়োজন করতে চলেছে বিশ্বকাপ। কাতার বিশ্বকাপের দায়িত্ব পাওয়ার পর তাদের অনেক সমালোচনা শুনতে হয়েছে। বলা হয়েছিল এত বড় মাপের অনুষ্ঠান আয়োজন করার অভিজ্ঞতা নেই কাতারের। সেই ফল তাহলে কি হাতেনাতে পাওয়া যাচ্ছে!

গত শুক্রবার লুসেইল সুপার কাপের একটা ম্যাচের আয়োজন করা হয়েছিল এই লুসেইল স্টেডিয়ামে। এই উপলক্ষে প্রথমবার স্টেডিয়ামের দরজা খুলে দেয়া হয়েছিল দর্শকদের জন্য। প্রবল উৎসাহ নিয়ে সেদিন আশি হাজার দর্শকের স্টেডিয়ামে সত্তর হাজারের বেশি সংখ্যক দর্শক হয়েছিল। এয়ার কন্ডিশনার লাগানো স্টেডিয়ামটিতে কিন্তু প্রথম বার ভিড় সামলানোর অভিজ্ঞতা আয়োজকদের ভাল হল না। সেদিন তৈরি হয়েছিল এক নারকীয় পরিস্থিতি। স্টেডিয়ামে ৮০ হাজার আসন থাকলেও কাতারের যাতায়াত ব্যবস্থা কিন্তু এত মানুষের চাপ সামলানোর জন্য তৈরি নয়। ফলে মেট্রোতে মানুষ চূড়ান্ত ধাক্কাধাক্কি গাদাগাদির সম্মুখীন হয়েছে।

- Advertisement -

এর ওপর প্রচন্ড গরমে স্টেডিয়ামের গেটের সামনে প্রায় আড়াই কিলোমিটারের লম্বা লাইন। তপ্ত রৌদ্রে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বহু মানুষই। স্টেডিয়াম এয়ার কন্ডিশনড হলেও, এত বিশাল মানুষের চাপ সামলাতে ব্যর্থ আয়োজকরা। তার ওপরে ছিল জলের অভাব, হাফ টাইমের পর থেকে দর্শকদের ভালো মতো জল সরবরাহ করা যায়নি। কারণ জলের ভান্ডার নাকি শেষ হয়ে গিয়েছিল আয়োজকদের। এই পরিস্থিতির সামনে দাঁড়িয়ে আয়োজকরা অসহায় বোধ করেছেন। কারণ তীব্র গরমে স্টেডিয়ামের মানুষ চিৎকার করেছে জলের জন্য।

স্টেডিয়াম গেটে ভিড়ের ধাক্কা সামলাতে মারপিট করছে দর্শকরা। এমনকি স্টেডিয়ামের নিরাপত্তা রক্ষীদের মেরে ব্যারিকেড ভেঙে ভিড় এগিয়ে গেছে। স্টেডিয়ামের অনেক দর্শককে বলতে শোনা গেছে এরকম পরিস্থিতি থাকলে বিশ্বকাপ দেখতেও আসা যাবে না। বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে একটা সাধারণ ম্যাচকে কেন্দ্র করে আয়োজকরা দেখে নিল এই ভয়াবহ অবস্থা। আয়োজকদের এখন চিন্তাটা বাড়লো সামনের ফাইনাল রাউন্ডে কিভাবে এই ভিড় সামলানো যাবে। তবে এই অবস্থা আয়োজকদের অনেকটাই সতর্ক করে দিল। ফিফাও এই ব্যাপারটা নিয়ে এখন খুবই চিন্তিত।