ফুটবল ভালোবাসি বলেই খেলা হবে স্লোগানটা দিয়েছিলাম: ইস্টবেঙ্গলের আর্কাইভ উদ্বোধন করে বললেন মমতা

0
41
east-bengal-club-archive-inaugurated by CM mamata-banerjee

কলকাতা: বুধবার ইস্টবেঙ্গল ক্লাব তাঁবুতে এসে নতুন সংগ্রহশালা উদ্বোধন করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে মোহনবাগান ক্লাবেরও নবনির্মিত তাঁবু উদ্বোধন করেছিলেন তিনি। এই সংগ্রহশালায় থাকবে ইস্টবেঙ্গলের বিভিন্ন দুর্লভ জিনিস। ১৯৫৩ সালে রোমানিয়ার ক্লাবের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের ম্যাচ, ১৯৭০-র ইরানের পাস ক্লাবকে হারিয়ে আইএফএ শিল্ড জয়, ২০০৩ সালের আশিয়ান কাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মুহূর্ত সাজিয়ে রাখা হবে এখানে। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এদিন ক্লাবে উপস্থিত ছিলেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম, ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মনোজ তিওয়ারির মতো ব্যক্তিত্বরা।

প্রথমেই ক্লাবকর্তা, ইমামি গ্রুপের কর্তাদের ও খেলোয়াড়, কোচদের নমস্কার ও ধন্যবাদ জানিয়ে নিজের বক্তব্য শুরু করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “মোহনবাগানের লড়াই ছিল গোর্খাদের সঙ্গে ব্রিটিশ শক্তির বিরুদ্ধে খালি পায়ে ফুটবল খেলে স্বাধীনতা আন্দোলন ছাত্র যৌবনকে অনুপ্রাণিত করেছিল। আর ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে যদি দেখেন ধারাবাহিকতা ভাবে তারাও কিন্তু দেশভাগের আন্দোলনে সেই দুঃসময়ে। কঠিন সময়ে যখন বাধভাঙা উচ্ছ্বাস করার কথা তখন কিন্তু তারা জীবনটাকে কখনও বাঘ কুমিরের সঙ্গে লড়ে ওপার বাংলা থেকে এপার বাংলায় এসেছিলেন।”

- Advertisement -

আরও পড়ুন: ইস্টবেঙ্গল তাঁবুতে দাঁড়িয়ে স্পোর্টস ইউনিভার্সিটি তৈরির ঘোষণা মমতার

এরপর মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি ফুটবল ভালোবাসি বলেই খেলা হবে এই স্লোগানটা দিয়েছিলাম। আমি রোজ বাড়িতে ১০০ বার ফুটবলটাকে নাচাই। খেলা হবে এটাকে মনে রাখার জন্য যাতে আমি ভুলে না যাই। আমি খেলতে ভালোবাসি, কিন্তু মার খেতে সিপিএমের আমলে দুটো হাতে অপারেশন, পায়ে অপারেশন, কোমরেও চোট আছে। আমি মনে জোরে খেলি এবং সুযোগ পেলে একটু আধটু ব্যাডমিন্টনও খেলি।”

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে না হারার রেকর্ড এবার এশিয়া কাপেও হাতছানি দিচ্ছে

একাধিক প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মমতা। ইস্টবেঙ্গলকে আবারও ৫০ লক্ষ টাকা অনুদানের ঘোষণা করেন মমতা। সেই সঙ্গে স্পোর্টস ইউনিভার্সিটি তৈরির ঘোষণা করেন মমতা। এরপর মুখ্যমন্ত্রী ক্লাবের প্রশংসা করে বলেন, “আমি ইস্টবেঙ্গলের আর্কাইভটা আজ দেখছিলাম। এটা বিশ্বে অন্যতম সেরা আর্কাইভ। যা কথায় বলে প্রকাশ করা যাবে না। সত্যিই এটা দর্শনীয়। যেটা আমি মনে করি সিএবি থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি ক্লাবের করা উচিত। মোহনবাগান ইস্টবেঙ্গল এখন আইএসএলও খেলছে, আমি চাই এবার মহামেডানও খেলুক। বাংলার ক্লাব তাদের মাথার উপরে কোটিপতিরা নেই বলে তারা খেলবে না, এ কখনও হয়। আমাদের মানসিকতা আছে, নাই বা থাকল পয়সা।”