হিন্দুস্তান মোটরের অ্যাম্বাসেডর যদি আজ নির্মাণ করা হয়, কেমন দেখতে হবে

0
352

খাস খবর ডেস্ক: ভারতীয় অটোমোবাইল ইতিহাসে একটি অমর নাম হয়ে আছে হিন্দুস্তান মোটরের অ্যাম্বাসেডর। যা চালু হয় ১৯৫৭ সালে। এরপর দীর্ঘ ৫৭ বছর এর উৎপাদন অব্যাহত ছিল। এটিই ছিল ভারতের তৈরি প্রথম গাড়ি। যা যুক্তরাজ্যের মরিস অক্সফোর্ড সিরিজ III-এর উপর ভিত্তি করে ছিল। অ্যাম্বাসেডর তার সময়ের চেয়ে এগিয়ে ছিল এবং এটি নতুন যুগের মনোকোক চ্যাসিস ডিজাইনের উপর নির্মিত হয়েছিল।

আরও পড়ুন: মাঙ্কি পক্সে আক্রান্তদের কোয়ারান্টাইনের নির্দেশ, জল্পনা লকডাউনের-ও

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

একটা সময় হিন্দুস্তান অ্যাম্বাসেডরকে “ভারতীয় রাস্তার রাজা” বলা হত। এটি এমন এক ঐতিহ্য তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে, যা মূল মরিস অক্সফোর্ড পারেনি। আচ্ছা যদি আজ নতুন করে হিন্দুস্তান অ্যাম্বাসেডর বা মরিস অক্সফোর্ড সিরিজ চালু করা হয়, তাহলে এটি কেমন দেখতে হতে পারে? নকশা কেমন হবে?

সে-ই কল্পনা করেছেন TUGBOTZ -এর অমল সাতপুতে। যদিও তাঁর কল্পিত গাড়ির কোনও বডি প্যানেলের সঙ্গে-ই আসল অ্যাম্বাসেডরের মিল নেই। যা দেখে পুরনো গাড়িটিকে মনে পড়তে পারে। এই কল্পিত গাড়িটির চেহারা বরং অনেক বেশি ধারালো।

সামগ্রিকভাবে, এই গাড়ির নকশা প্রসারিত এবং দীর্ঘায়িত যা গাড়িকে একটি অ্যারোডাইনামিক এবং স্পোর্টি চেহারা দেয়। সামনের দিকে একটি তারকাখচিত গ্রিল রয়েছে, যা মার্সিডিজ-বেঞ্জ গাড়িতে দেখা গিয়েছে। দুটি বৃত্তাকার আকৃতির ডিআরএল রয়েছে যা হেডল্যাম্পগুলিকে আবদ্ধ করে। পাশ থেকে ডিজাইনে একটি অ্যাস্টন মার্টিন স্পর্শ লক্ষ্য করা যায়।

গাড়ির পিছনে মসৃণ LED ল্যাম্পগুলি উল্লম্বভাবে সেট করা হয়েছে। এগুলি সেডানে ক্যাডিলাকের চেহারা দেয়। গ্লাসহাউসটি-ও অত্যন্ত স্পোর্টি। এটি দীর্ঘায়িত এবং বডি থেকে খুব বেশি উঠে যায় না। ডিজাইনটি এমন যে গাড়িটির স্থির অবস্থাতেও দ্রুত দেখায়। তবে জানিয়ে রাখা দরকার, এ নিতান্তই কল্পনা। নতুন করে নতুন নকশায় অ্যাম্বাসেডর বাজারে নিয়ে আসার কোনও পরিকল্পনা কর্তৃপক্ষ আদিত্য বিড়লা গোষ্ঠীর নেই।