মোদী-মমতার সেটিংয়ের তত্ত্বে বঙ্গে গেরুয়া আন্দোলন ভোঁতা হওয়ার আশঙ্কা

0
73
narendra modi

কলকাতা: পার্থ অনুব্রত, পরেশ, মানিক, মলয় থেকে অভিষেক৷ সিবিআই, ইডির ‘নাচানাচি’তে চরম বিড়ম্বনায় রাজ্যের শাসকদল৷ প্রথমজন আপাতত ইডি হেফাজতে৷ বাকিদের নিয়ে প্রতি মাসেই টানাটানি করছেন সেন্ট্রাল এজেন্সির কর্মকর্তারা৷ এহেন আবহে রাজধানী দিল্লিতে মোদীর (narendra modi) সঙ্গে দিদির বৈঠক ঘিরে ক্রমেই পারদ চড়ছে ‘সেটিং’ জল্পনার!

বিরোধী শিবির তো বটেই খোদ গেরুয়া শিবিরের একাংশও এই বিষয়ে চরম উষ্মা প্রকাশ করেছেন৷ তাঁদেরই অন্যতম বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা তথাগত রায়৷ নিজের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে তথাগত লিখেছেন, ‘‘কলকাতা এখন ‘সেটিং’-এর আশঙ্কায় ভুগছে। এর মানে যেন মোদীজি এবং মমতার মধ্যে একটি গোপন বোঝাপড়া চলছে। এতে তৃণমূলের চোর অথবা বিজেপি কর্মীদের খুনিরা মুক্ত হবে। অনুগ্রহ করে আমাদের বোঝান যে এরকম কোন ‘সেটিং’ বৈঠকে হবে না!”

বস্তুত, রাজ্য এবং কেন্দ্র দুই প্রশাসনিক প্রধানের বৈঠক যদি সরকারি হয়, তাহলে সেখানে কেনও কোনও আমলা বা পদস্থ আধিকারিককে উপস্থিত রাখা হল না, তা নিয়েও বড়সড় প্রশ্ন সামনে এনেছেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম৷ তিনি বলেন, ‘‘দু’জনের একান্ত বৈঠক থেকেই স্পষ্ট ম্যাচ ফিক্সিংয়ের বিষয়টি৷’’ বস্তুত, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের জেলে যাওয়া, শুভেন্দু দিল্লি থেকে ফেরার পরে নতুন করে সিবিআইয়ের তৎপর হয়ে ওঠা এবং সবশেষে নেত্রীর দিল্লি গমণকে একসূত্রে গেঁথে ইতিমধ্যেই বাংলার আনাচে কানাচেও শুরু হয়েছে দিদি-মোদীর সেটিংয়ের জল্পনা৷

বঙ্গ গেরুয়ার একাংশ শীর্ষ নেতৃত্ব মনে করছেন, এমন আবহে নেত্রীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী (narendra modi) দেখা না করলেই ভাল করতেন৷ সত্যি সেটিং আছে কি না তার চেয়েও বড় কথা, এই বিষয়ে জনমানসে যেভাবে চূড়ান্ত প্রতিক্রিয়া সামনে আসছে তাতে আগামীদিনে বাংলায় আন্দোলন করাটাই বড্ড চাপের হয়ে দাঁড়াবে গেরুয়া শিবিরের৷

আরও পড়ুন: জামিন পেতে মরিয়া পার্থ বিধায়ক পদ থেকেও ইস্তফা দিতে রাজি