জেলে পার্থ যেন বাড়তি সুবিধা না পান, হুঁশিয়ারি কুণালের

0
27
Kunal ghosh

কলকাতা: তিনি আর প্রভাবশালী নন৷ এই তত্ত্বকে সামনে রেখেই জামিনের জোর চেষ্টা করেছিলেন আইনজীবী৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত জামিন খারিজ করে রাজ্যের প্রাক্তন দাপুটে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ইডি হেফাজত থেকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পাঠিয়েছেন বিচারপতি৷ আর সেই নির্দেশ সামনে আসতেই এবার প্রকাশ্যে মুখ খুললেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ (Kunal ghosh)৷ বললেন, ‘‘জেলে পার্থ যেন বাড়তি সুবিধা না পান৷ জেল হাসপাতালে নয়, ওকে জেলেই রাখতে হবে৷’’ শুধু এটুকুতেই থামেননি কুণাল৷ একই সঙ্গে তাঁর হুঁশিয়ারি ‘‘জেলে পার্থ যদি বাড়তি সুবিধা পায়, তাহলে আমি ছেড়ে কথা বলব না!’’

বস্তুত, এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে ইডি হেফাজত শেষে এদিনই ১৪ দিনের জেল হেফাজতে যেতে হয়েছে অপাকে৷ যদিও পার্থর আইনজীবীকে এদিন আদালতে দাঁড়িয়ে একথাও বলতে শোনা যায়, ‘‘আমার মক্কেলের ৭২ বছর বয়স৷ উনি শারীরিকভাবে অসুস্থ৷ তাছাড়া ওর বিরুদ্ধে ন্যূনতম কোনও অভিযোগ প্রমাণিত নয়৷ তাই যেকোনও মূল্যে ওকে জামিন দেওয়া হোক!’’ পার্থকে বলির পাঁঠা করা হচ্ছে বলেও এদিন সওয়াল জবাবের সময় আদালতে দাবি করেন পার্থের আইনজীবী৷

এরপরই তার জামিন নাকচ হতেই মুখ খুলতে দেখা যায় কুণালকে৷ যা নিয়ে জোর রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়েছে৷ একাংশের মতে, কুণাল এখন তৃণমূলের মুখপাত্রও৷ অর্থাৎ দলের সম্মতি ছাড়া তিনি কোনও প্রতিক্রিয়া দেবেন না৷ ওই মহলের মতে, পার্থ ইস্যুতে দলের ড্যামেজ কন্ট্রোলেই এমন কথা বলছেন কুণাল (Kunal ghosh)৷ অপর অংশের মতে, সারদা মামলায় একাধিক মাস জেল খাটতে হয়েছিল কুণালকে৷ ওই সময় রাজ্যের বিরুদ্ধে একাধিকবার অত্যাচারের অভিযোগে সরব হয়েছিলেন কুণাল৷ সেই কারণেই, অন্য কেউ জেলে গিয়ে বাড়তি সুবিধা পান, সেটা তাঁর না-পসন্দ৷ স্পষ্টভাবে সেটাই বলার চেষ্টা করেছেন তিনি৷

আরও পড়ুন: ফোন করে সন্তানকে অপহরণের হুমকি, আতঙ্কে দত্তপুকুর

downloads: https://play.google.com/store/apps/details?id=app.aartsspl.khaskhobor