এই জিনিসের মারাত্মক প্রভাব না থাকলেই ২১-এ বাংলা দখল করত বিজেপি, দাবি নাড্ডার

0
231

কলকাতা: ‘আবকি বার ২০০ পার’ ২০২১-এর বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই স্লোগানি দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তবে বিজেপির বঙ্গ জয়ের ইচ্ছা স্বপ্নি থেকে গিয়েছে ২০০ কেন ১০০ গণ্ডি বিজেপি পার করতে পারেনি। ফল প্রকাশের পরেই বঙ্গের গেরুয়া শিবিরে ধরেছে বড় ভাঙন । শুধু তাই নয় দলের অন্দরের কোন্দল এসেছে প্রকাশ্যে। গত বছরের নির্বাচনের পর এই প্রথম দু দিনের সফরে কলকাতা এসেছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। বাংলা এসেই জানিয়েছেন কি কোন জিনিস না থাকলে বাংলা দখল করতে পারত বিজেপি।

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির শোচনীয় পরাজয়ের এক বছর পরে জেপি নাড্ডা দাবি করেছেন করোনা মহামারীর বিধ্বংসী দ্বিতীয় ধেউ প্রচারে প্রভাব না ফেললে বাংলায় বিজেপির ক্ষমতা দখল নিশ্চিত ছিল। বঙ্গ দখল প্রসঙ্গে নাড্ডা বলেছেন, “নির্বাচনী প্রচারণার সময় যে গতিতে আমরা এগিয়েছিলাম, তাতে এটা নিশ্চিত ছিল যে আমরা সঠিকভাবে আঘাত করব এবং ক্ষমতায় আসব। কিন্তু ভোটের চতুর্থ পর্বের ঠিক পরেই করোনভাইরাসটির দ্বিতীয় তরঙ্গ আমাদের প্রচারণা বন্ধ করতে বাধ্য করেছিল।” তবে বাংলায় হারলেও লড়াই জে বিজেপির থামবে না সেই বার্তাও আরও একবার দিদির রাজ্য থেকে দিয়ে গিয়েছেন নাড্ডা। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি তৃণমূলকে নিশানা করে বলেছেন, যে দলটি বাঙালির গর্বকে সমুন্নত রাখতে এবং যারা এটিকে হেয় করার চেষ্টা করে তাদের কুকীর্তি ফাঁস করার লড়াই বাংলা থেকে চালিয়ে যাবে গেরুয়া বাহিনী।

আরও পড়ুন : গায়ক সিধুর খুনে অভিযুক্ত Goldy Brar-র বিরুদ্ধে ‘রেড কর্নার নোটিস’ জারি করল ইন্টারপোল

নাড্ডার কথায়, বঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের চতুর্থ পর্বের পরে প্রচার কার্যত বন্ধ হয়েছিল এবং বাকী পর্বে নির্বাচনগুলি কোনও প্রচারণা ছাড়াই হয়েছিল। এই কারণেই বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় আসতে পারেনি বলেই জানিয়েছেন নাড্ডা। তবে আগামী নির্বাচনে বিজেপি যে বাংলা দখল করবে এবং কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে একটি বিজয় সমাবেশ পরিচালনা করবে বলেই আত্মবিশ্বাস প্রকাশ করেছেন তিনি। তারপরেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করে বলেছেন, তৃণমূল প্রধান পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতিকে ২০১৪ সালের আগে দেশের মতো অবস্থা করে রেখেছে। পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়েও কটাক্ষ করে সরব হয়েছেন।