ক্রমেই সিপিএমের বঙ্গ ব্রিগেডের মুখ হয়ে উঠছেন ‘আগুনপাখি’ Minakshi

0
231
Minakshi Mukherjee
File Photo

কলকাতা : একসময় জ্যোতি বসু, তারপর বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য বাংলার বামপন্থী রাজনীতির দুই অন্যতম মুখ, বলা ভাল সিপিএমের দুই জনপ্রিয় মুখ। ২০১১ সালে বামফ্রন্ট ক্ষমতা থেকে চলে গেলেও ব্রিগেডের শেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকতেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। 

আরও পড়ুন : UP Election Exclusive : এই নির্বাচন যতোটা যোগীর, ঠিক ততোটাই মোদীর 

- Advertisement -

কিন্তু সেসব এখন অতীত, কালের নিয়মে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য আজ শারীরিকভাবে অসুস্থ, ফলে গত কয়েক বছরে মুখের সঙ্কটের মধ্যে পড়তে হয়েছিল আলিমুদ্দিন স্ট্রীটকে বলছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। বামেদের কাছে এমন কোনও ক্রাউডপুলার ছিলেন না যিনি দলের কর্মী সমর্থকদের বাইরে গিয়েও সাধারণ জনসাধারণের মধ্যে প্রভাব ফেলতে পেরেছেন। কমিউনিস্টরা ব্যাক্তিকে সামনে তুলে ধরতে না চাইলেও তারা এটা বিলক্ষণ বোঝেন মোদী-মমতার মতো মুখের সঙ্গে লড়তে গেলে নীতি ও একজন নেতৃত্বদানকারী চেহারার বড় প্রয়োজন। 

সারাদিনের সমস্ত খবরের আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন খাস খবর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ: https://play.google.com/store/apps/details?id=app.aartsspl.khaskhobor

বিস্তারিত খবর, লাইভ ভিডিও সহ সমস্ত রকম আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ: https://www.facebook.com/khaskhobor2020

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচন থেকেই খানিকটা ইঙ্গিত মিলেছিল, তবে সাম্প্রতিক আনিস কাণ্ডে বামেদের আন্দোলনে একটি বিষয় পরিস্কার করে দিলেন বাম কর্মী সমর্থকরাই। সামাজিক মাধ্যম থেকে লড়াইয়ের ময়দান তারা আসানসোলের কোলিয়াড়ি অঞ্চলের ভূমিকন্যা মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়কেই বামেদের আগামীর মুখ হিসেবে দেখছেন। কুলটির চলবল্পুরের হার না মানা লড়াকু মেয়ে যে ক্রমশই নিজের বক্তৃতার দ্বারা মানুষের নজর কাড়ছিলেন তা বোঝা গিয়েছিল আগেই। তবে আনিস কাণ্ডের প্রতিবাদে আন্দোলন করতে গিয়ে জেলযাপন তাকে কমরেডকূলের নয়নের মণি করে তুলেছে। অনেকে মনে করিয়ে দিচ্ছেন নন্দীগ্রামে দুই হেভিওয়েট মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে মীনাক্ষীর লড়াইয়ের কথা, কম সময়ের মধ্যেই তিনি হয়ে উঠেছিলেন নন্দীগ্রামের ‘কাজলা দিদি’। অনেকে তাকে ‘আগুন পাখি’ বলেও ডাকতে শুরু করেছেন। তবে কি এরপর কোনও একদিন বাংলা শাসন করবে পশ্চিম বর্ধমানের শ্রমিক মহল্লার কোনও এক লড়াকু কন্যা, প্রশ্নটা উঁকি দিচ্ছে অনেকের মনেই।