Mamata Banerjee: ত্রিপুরার উত্তাপের মধ্যেই মোদী-সনিয়ার সঙ্গে বৈঠক করতে আজ দিল্লিতে মমতা

ত্রিপুরায় উত্তাপের আবহে যে মমতার দিল্লি সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। আজ সন্ধ্যায় তৃণমূল সুপ্রিমো দিল্লি পৌঁছাবেন।

0
71

কলকাতা: বাংলা জয়ের পর থেকেই সর্বভারতীয় রাজনীতিতে প্রভাব বিস্তারে নেমেছে তৃণমূল। প্রথমেই চোখ পড়েছে ত্রিপুরার দিকে। কিন্তু বিপ্লব গড়ে পা দেওয়া থেকেই শুরু হয়েছে সমস্যা। রবিবার ত্রিপুরায় তৃণমূল নেত্রী সায়নী ঘোষকে গ্রেফতারি নিয়ে যখন উত্তাল রাজনৈতিক মহল সেই আবহে আজ দিল্লি যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক করার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কংগ্রেস নেত্রী সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে।

ত্রিপুরায় উত্তাপের আবহে যে মমতার দিল্লি সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। আজ সন্ধ্যায় তৃণমূল সুপ্রিমো দিল্লি পৌঁছাবেন। মোদী বিরোধী ঐক্যকে শক্তিশালী করতে তাঁর এজেন্ডাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্যই এই সফর বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক মহল। জানা গিয়েছে, রাজ্যের জন্য কেন্দ্রীয় তহবিল এবং বিএসএফ-এর নিয়ন্ত্রণ অঞ্চল সম্প্রসারণের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন বলেই খবর রয়েছে। তবে রবিবারের ঘটনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মমতা কথা বলেন কিনা এটাই এখন দেখার পালা।

আরও পড়ুন – Agnimitra Paul: মুখ্যমন্ত্রীকে অ্যাক্টিং করার পরামর্শ, ‘অস্কারটা হয়তো আমরা পেয়ে যেতাম’

বলা ভালো তৃণমূল যখন বাংলা ছাড়া বাইরের রাজ্য প্রভাব বিস্তার করতে চাইছে তখন থেকেই শুরু হয়েছে সমস্যা। তবে রবিবারে ত্রিপুরার ঘটনা বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ বাড়িয়ে বহুগুণ। প্রথমে সায়নী ঘোষকে থানায় ডাকা তারপর খুনের অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। সেই নিয়েই উত্তাল হয়ে রয়েছে বিপ্লব দেবের গড়। গতকালের ঘটনার পরই ত্রিপুরা উড়ে গিয়েছেন সৌগত রায়। সেখানে রয়েছেন কুণাল ঘোষ, সুস্মিতা দেব সহ একাধিক তৃণমূল নেতারা। আজ সোমবার সেখানে গিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে একাধিক তৃণমূল সাংসদ দিল্লিতে ধর্নায় বসতে বসেছে উত্তর-পূর্ব রাজ্যে বিজেপির দলীয় কর্মীদের সহিংসতার প্রতিবাদে। এমনকি তৃণমূল সাংসদরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছেও অ্যাপয়েন্টমেন্ট চেয়েছেন। সব মিলিয়ে রাজনৈতিক পারদ চড়ছে হু হু করে।