খেলা হোক, তবে আনন্দের

0
179

খাস খবর ডেস্ক: খেলা সত্যি হচ্ছে৷ বলছেন বীরভূমের মানুষ৷

আরও পড়ুন: মমতাকে হারাতে বিশেষ পদক্ষেপ শাহের

তবে এ খেলায় যেন রক্তপাত না হয়৷ খেলা হোক, তবে তা যেন মানুষের মুখের হাসি কেড়ে না নেয়৷ খেলা হোক, তবে কেউ যেন কারও কোলখালি করার খেলা না খেলেন৷ ববীরভূমের সদর শহর সিউড়ি৷ গত ক’দিন ধরেই সিউড়ি শহরে দেদার বিকোচ্ছে ‘খেলা হবে’ লেখা টি শার্ট৷ কোনও কোনও টি শার্টে আবার লেখা রয়েছে, ‘বন্ধু এবার খেলা হবে’৷

 

দেবদাস মণ্ডল যেমন বলছেন, ‘‘টি শার্টে ক্যাপশন লেখা থাকলে তার গুরুত্বটাই বেড়ে যায়৷ সেই অর্থে খেলা হবে এবারের ভোটের সবচেয়ে জনপ্রিয় স্লোগান৷ তাই খেলা হবে স্লোগান লেখা গেঞ্জি দেখে না কিনে থাকতে পারলাম না৷’’ নিজেকে অরাজনৈতিক দাবি করে তিনি বলছেন, ‘‘আমরা চাই খেলা হোক, তবে তা যেন আনন্দের হয়৷ খেলার নামে যেন মানুষকে সন্তানহারা, স্বামীহারা হতে না হয়৷ তেমন খেলায় হোক যাতে মানুষের মুখে হাসি ফোটে৷’’ একই কথা আব্দুল হামিরের৷ বলছেন, ‘‘খেলা হোক না, কে বাধা দিচ্ছে৷ উন্নয়নের খেলা হোক৷ আরও বেশি করে মানুষকে পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার খেলা হোক৷ তা হলে তো কারও কোনও সমস্যা হওয়ার কথা নয়৷’’

 

প্রসঙ্গত, এবারের ভোটে সবচেয়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠা ‘খেলা হবে’ স্লোগান এখন রাজনৈতিক নেতা থেকে সাধারণ মানুষের মুখে মুখে৷ মোদী থেকে মমতা সকলেরই মুখে বারে বারে শোনা গিয়েছে খেলা হবে৷ ব্যবসায়ী বাসুদেব মণ্ডল বলছেন, ‘‘এখন ভোটের সিজন৷ স্বভাবতই, খেলা হবে ট্যাগ লাইনটা ভাল খাচ্ছেও৷ দেদার বিকোচ্ছে গেঞ্জি৷ ২০০ পিস গেঞ্জি কিনে এনেছিলাম৷ একদিনেই ১৫০ পিস বিক্রি হয়ে গেছে৷’’

 

খেলা সত্যি হচ্ছে৷ ‘খেলা হবে’র দৌলতে অন্তত দু’টো বাড়তি পয়সা রোজগার হচ্ছে বাসুদেবদের৷ এটাই বা কম কি! বলছেন বীরভূমের আমআদমি৷ তবে আর্জি একটাই, ‘‘রক্তের খেলা যেন না হয়৷ খেলা হোক, তবে আনন্দের৷’’