স্পেশ্যাল হোমগার্ড পদে চাকরি প্রাক্তন মাওবাদী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের

0
25

কলকাতা: শাল মহুয়ার জঙ্গলে ঘেরা তল্লাটে ইদানিং ফের উঁকি মারছে সাদা কাগজের ওপর লালকালিতে লেখা পোস্টার৷ পোস্টারগুলি আদৌ মাওবাদীদের কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ তবে সাম্প্রতিক অতীতে একের পর এক মাও পোস্টারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জঙ্গলমহলে৷

ইতিমধ্যেই জঙ্গলমহলের দুই জেলা সফর করে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ আগামী ৩১ মে-১জুন ফের জঙ্গলমহলের আরও দুই জেলা সফরে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এহেন আবহে জঙ্গলমহলে স্পেশ্যাল হোমগার্ড পদে ১০৫ জনকে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য মন্ত্রিসভা৷ এর মধ্যে ৪৮ জন প্রাক্তন মাওবাদী ও বাকিরা মাওবাদী পরিবারের সদস্য ও প্রাক্তনী৷ সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই জানিয়েছেন এই তথ্য৷

স্বভাবতই, এই নিয়োগের বিষয়টির সঙ্গে জঙ্গলমহলের সাম্প্রতিক পোস্টার রাজনীতির সাদৃশ্য দেখতে পারছেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ তাঁদের মতে, বঞ্চনার অভিযোগে গোপনে মাও উৎপাতের যেটুকু শিকড় তৈরি হচ্ছিল তা সমূলে উচ্ছেদ করতেই তড়িঘড়ি প্রাক্তন মাওবাদী ও তাদের পরিবারের সদসদের পুলিশের চাকরিতে নিয়োগের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হল৷ একই অভিমত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের৷ তাঁদের মতে, শান্ত জঙ্গলমহলের শান্তি অক্ষুন্ন রাখতে কাঁটা দিয়েই কাঁটা তোলার পরিকল্পনা নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

বস্তুত, সম্প্রতি জঙ্গলমহলে সামনে আসা পোস্টার ও সেই সূত্রে মাওবাদী কার্যকলাপ সম্পর্ক খতিয়ে দেখতে গিয়ে পুলিশের একাংশের অনুমান, একদা মাওবাদী আন্জদোলনের সঙ্গে যুক্ত একাংশ ফের বঞ্চনার অভিযোগে সরব হচ্ছিলেন৷ তারই জেরে সাম্প্রতিক অতীতে জঙ্গলমহলে মাও কার্যকলাপ দেখা যাচ্ছিল৷ ফলে মুখ্যমন্ত্রীর এহেন পদক্ষেপের জেরে ওই ধরণের বিচ্ছিন্নতামূলক পদক্ষেপ অচিরেই ধ্বংস হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: নারী সুরক্ষায় জোর দিতে মহিলা কনস্টেবল নিয়োগের সিদ্ধান্ত রাজ্যের